বারডেমে চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধি


প্রকাশিত: ০৩:৫৮ এএম, ০১ জানুয়ারি ২০১৬

ডায়াবেটিক রোগীদের ওপর সরকারি বেতন বৃদ্ধির খড়গ নেমেছে। সম্প্রতি সরকার ঘোষিত বেতন স্কেলে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন প্রায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পাওয়ায় বারডেম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসা ব্যয় বাড়িয়ে দিয়েছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, বিদায়ী বছরের শেষ কয়েক মাসে ধাপে ধাপে সকল প্রকার প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট ও শয্যা ফি বৃদ্ধি করেছে হাসপাতালটি। এদের চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধির শতকরা হার ২৫ থেকে ৪০ ভাগ।

হঠাৎ করে চিকিৎসার ব্যয় বহুলাংশে বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ ডায়াবেটিক রোগীরা চরম বিপাকে পড়েছেন। বিশেষ করে জটিল ও ব্যয়বহুল রোগের পরীক্ষা নিরীক্ষার ফি বৃদ্ধি পাওয়ায় সুচিকিৎসা হুমকির মুখে পড়েছে। বারডেম হাসপাতালে পরীক্ষা নিরীক্ষা করাতে এসে ডায়াবেটিক রোগীরা মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে হাসপাতালের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে তর্কবিতর্কে লিপ্ত হচ্ছেন।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি ও বারডেম হাসপাতালের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষার ফিসহ সার্বিক চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধির খবরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বারডেম হাসপাতাল সরকারি স্কেলে বেতনভাতা প্রদান করে থাকে। সরকারি বেতনভাতা বৃদ্ধির ফলে হাসপাতালে শুধুমাত্র বেতনভাতা বাবদ প্রতি মাসে এক কোটি টাকা ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিশাল অংকের ব্যয় বৃদ্ধির ঝামেলা থেকে পরিত্রাণ পেতে হাসপাতালটি বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্টের ফি বৃদ্ধি করতে বাধ্য হয়েছে। চিকিৎসা ফি বৃদ্ধির ফলে হাসপাতালটির মাত্র ৫০ লাখ টাকা আয় বেড়েছে বলে ওই কর্মকর্তারা দাবি করেন।

জানা গেছে, শাহবাগের বারডেম হাসপাতাল-১ এ ৫শ’৭৬ শয্যা ও সেগুণবাগিচায় ১২২ শয্যার বারডেম-২ হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার, নার্স, ওয়ার্ডবয়, কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সংখ্যা ২ হাজার ৭শ’ জন। এ দুটি হাসপাতালে প্রতিদিন আউটডোরে পাঁচ সহস্রাধিক ও ইনডোরে শতকরা ৮০ থেকে ৯০ ভাগ বেডে রোগী ভর্তি  থাকেন।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি (বাডাস) যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ডা. রশীদ ই মাহবুব বারডেমে চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধির খবরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সরকারি স্কেলে বেতন দিতে গিয়ে বর্তমানে বারডেম হাসপাতালে শুধুমাত্র বেতনভাতা বাবদ এক কোটি টাকা খরচ বেড়েছে। ঘাটতি পূরণে পরীক্ষা নিরীক্ষার রিপোর্টের ফি বৃদ্ধি ছাড়া উপায় ছিল না। তবে এখনও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রেজিস্টার্ড ডায়াবেটিক রোগীদের ১৪ ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পূর্ন বিনামূল্যে করে থাকে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এ প্রসঙ্গে বারডেম হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব:) শহীদুল হক মল্লিক বলেন, বারডেম হাসপাতালে ছোট বড় প্রায় তিন হাজার প্রকারের পরীক্ষা নিরীক্ষা হয়। মোট পরীক্ষা নিরীক্ষার সংখ্যানুপাতে খুব কম পরীক্ষা নিরীক্ষার ফি বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি জানান, পরীক্ষা নিরীক্ষার ফি বৃদ্ধির বিষয়টিকে সহনীয় মাত্রায় রাখতে সরকারি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) এ দুটি হাসপাতালের ফি’কে অনুসরণ করেন। এক্ষেত্রে ফি যেন ঢামেক হাসপাতাল থেকে বেশী ও বিএসএমএমইউ থেকে কিছুটা বেশী থাকে সেই নীতি অনুসরণ করেন। ফি বৃদ্ধি হলে তা অন্যান্য বড় বড় প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিকের ফি’য়ের চেয়ে কম বলে তিনি দাবী করেন ।

এমইউ/এআরএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]