উইন্ডিজ সফরের প্রাথমিক দলে নেই নাসির, অনিশ্চিত তাসকিনও

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:২১ পিএম, ০৪ মে ২০১৮

জাগো নিউজের পাঠকদের আগেই জেনে গেছেন, মে মাসের প্রথম সপ্তাহ মানে ৫-৬ তারিখের মধ্যে দু থেকে তিনটি দলের ঘোষণা আসছে। যার অন্যতম হলো, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রাথমিক স্কোয়াড। এর বাইরে হাই পারফরম্যান্স ইউনিট, ‘এ’ দলের সংক্ষিপ্ত তালিকাও ঘোষণা হবে।

সে আগাম খবরই বাস্তব রূপ পেতে যাচ্ছে । সব কিছু ঠিক থাকলে আগামীকাল ৫ মে শনিবার ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দলের ঘোষণা আসছে। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আজ নিশ্চিত করেছেন এ তথ্য। প্রধান নির্বাচক জানান, শনিবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রস্তুতির জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা করা হবে।

নান্নুর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, আফগানদের জন্য টি-টোয়েন্টি সিরিজ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রাথমিক অনুশীলন ক্যাম্পে ৩০ জনকে ডাকা হবে। এর পাশাপাশি থাকবে ২২ জনের হাই পারফরম্যান্স ইউনিটও। যার আট জন আবার ‘এ’ দলের জন্য বিবেচিত হবেন।

জাতীয় দলের এই প্রধান নির্বাচক বলেছেন, ‘কাল (শনিবার) আমরা দল জমা দিচ্ছি। ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দল হবে। কিছু খেলোয়াড়কে ‘এ’ দলে রাখব। ওদের এইচপির সঙ্গে যুক্ত করছি। এইচপি দলটা হবে ২২ জনের। ৬-৮ জনকে ‘এ’ দলে দেব। জাতীয় দলের ৩০ জনের দল হবে আফগানিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য।’

মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর কথায় পরিষ্কার, তাদের চিন্তায় এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর আর শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে সিরিজ।

প্রসঙ্গতঃ আগামী জুনের শেষ সপ্তাহে ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাবে টাইগাররা। সেখানে দুই ম্যাচের টেস্ট এবং তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে। আর টি-টোয়েন্টি সিরিজ হতে পারে যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে। আর প্রায় একই সময়ে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের বিপক্ষে তিনটি চারদিনের ম্যাচসহ একদিনের সিরিজ খেলতে আসছে লঙ্কান ‘এ’ দল। তার বিপক্ষে সিরিজটিকেও খুব গুরুত্বর সাথে বিবেচনা করা হচ্ছে।

আর তাইতো নান্নুর কন্ঠে এমন কথা, ‘প্রাথমিক দলটা নিয়ে আপাতত আমরা কাজ করব। আফগানিন্তান সিরিজের পর লম্বা সফর আছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে ২ টেস্ট, ৩ ওয়ানডে ও ২টি টি-টোয়েন্টি আছে। খুব চ্যালেঞ্জিং সিরিজ। জাতীয় দলের সঙ্গে সঙ্গে ‘এ’ দলের সিরিজ আছে। আমরা একটা সমন্বয় তৈরি করছি। যারা ১-২ বছরের মধ্যে জাতীয় দলে আসবে বা ইমিডিয়েট রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে খেলবে।’

প্রধান নির্বাচক আরও একটি তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নাসির হোসেন ভক্তদের জন্য আছে দুঃসংবাদ। ৩০ জনের প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকছেন না এই অলরাউন্ডার। কদিন আগে রাজধানীর বাইরে সিরাজগঞ্জে এক আত্মীয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে ফুটবল খেলতে গিয়ে পায়ে ব্যথা পেয়েছেন নাসির। তার লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে। সম্ভবত অস্ত্রোপচার লাগবে। তার পক্ষে এ বছর মাঠে নামা সম্ভব কিনা, সেটি নিয়ে যথেষ্টই সন্দেহ আছে।

প্রধান নির্বাচকের কন্ঠেও তেমন সংশয়, ‘নাসিরের ব্যাপারটা একটু কঠিন। তার মাঠে ফিরতে ৬ মাসের বেশি বা কম সময় লাগতে পারে। তাই তাকে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।’

শুধু নাসির নয়। জানা গেছে, পেসার তাসকিন আহমেদেরও প্রাথমিক দলে জায়গা পাওয়া অনিশ্চিত। তার পিঠে ব্যথা। ফলে দলের সঙ্গে এই গতিতারকারও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাবার সম্ভাবনা কম।

নান্নু জানিয়েছেন, ফিজিওর ফিটনেস সার্টিফিকেট পেলেই কেবল তাসকিনকে প্রাথমিক দলে রাখা হবে। অন্যথায় নয়। এ ব্যাপারে প্রধান নির্বাচকের বক্তব্য, ‘তাসকিনের ফিটনেস রিপোর্ট আজকের মধ্যে পাওয়ার কথা। ওর ব্যাপারটা পরিষ্কার হলে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

এআরবি/এমএমআর/পিআর