পাঁচ উইকেটের ‘হ্যাটট্রিক’ তাইজুলের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৯ পিএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশের সবচেয়ে আন্ডাররেটেড তথা অবমূল্যায়িত বোলার বলা চলে বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামকে। সাকিব আল হাসানের উজ্জ্বলতা ও দ্যুতির সামনে প্রায়ই ম্লান হয়ে যায় তাইজুলের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সব ঘটনাগুলো। এবার সাকিবের অনুপস্থিতিতে নিজেকে পুরোপুরি মেলে ধরতে পারলেন ২৬ বছর বয়সী এ বাহাতি স্পিনার।

সিলেটে সিরিজের প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই নিয়েছিলেন পাঁচ উইকেট। ঢাকায় এসে জিম্বাবুয়ের প্রথম ইনিংসে আবারও পাঁচ উইকেট নিয়ে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে টানা তিন ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিয়ে এনামুল হক জুনিয়র ও সাকিব আল হাসানের পাশে বসলেন তাইজুল।

বাংলাদেশের পক্ষে টানা তিন ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেয়ার প্রথম কীর্তিটা গড়েন এনামুল হক জুনিয়র। ২০০৫ সালে চট্টগ্রামে নিজের ক্যারিয়ারের চতুর্থ টেস্ট ম্যাচে জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৫ রান খরচায় ৬ উইকেট নিয়েছিলেন এনাম। পরে ঢাকায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৯৫ রানে ৭ এবং ১০৫ রান খরচ করে নেন ৫টি উইকেট।

সেই ঢাকা টেস্টে এনামের ২০০ রানে ১২ উইকেট এবং পুরো সিরিজে মোট ১৮ উইকেট নেয়ার কীর্তি বাংলাদেশ ক্রিকেটের রেকর্ড ছিলো ২০১৬ সাল পর্যন্ত। এনামের ১১ বছর পরে নিজের অভিষেক সিরিজে এই রেকর্ড ভেঙে দেন মেহেদি হাসান মিরাজ। তিনি চার ইনিংসে তিনবার ছয় উইকেট করে নিয়েছিলেন মোট ১৯টি উইকেট। তবে মাঝের এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিতে না পারায় সে সিরিজে পাঁচ উইকেটের হ্যাটট্রিক হয়নি মিরাজের।

এনামুল জুনিয়রের পরে ২০০৮ সালে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে পাঁচ উইকেটের হ্যাটট্রিক করেছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে এনামুল দুই ম্যাচে এই রেকর্ড গড়লেও সাকিবের এটি গড়তে খেলতে হয়েছিল তিন ম্যাচ।

২০০৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ে দুই ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। সে সিরিজে একমাত্র প্রাপ্তি ছিলো নিজেদের বোলিংয়ের দুই ইনিংসেই পাঁচ উইকেট প্রাপ্তি। ব্লুমফন্টেইনে ১৩০ রান খরচায় ৫ উইকেট নেয়ার পরে সেঞ্চুরিয়নে ৯৯ রানের বিনিময়ে ৬টি উইকেট নিয়েছিলেন সাকিব। পরে দেশে ফিরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঢাকায় সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই ৭০ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে পাঁচ উইকেটের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন সাকিব।

আর এবার দশ বছর পরে আবার এই কীর্তি গড়লেন তাইজুল ইসলাম। সিলেটে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১০৮ রানে ৬ উইকেট নেয়ার পরে দ্বিতীয় ইনিংসে ৬২ রানে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। আর এনাম-সাকিবদের পাশে বসার পথে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের ইনিংসে প্রথম ইনিংসে ১০৭ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে ‘পাঁচ উইকেটের হ্যাটট্রিক’ পূরণ করেছেন তাইজুল।

তবে তিনজনেরই এই টানা তিন ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেয়ার ঘটনায় একটি মিল রয়েছে। সেটি হলো তিনজনই নিজেদের প্রথম দুই পাঁচ উইকেট যেখানেই নিয়ে থাকুক না কেন, তৃতীয় পাঁচ উইকেট নেয়ার নজির তারা স্থাপন করেন ঢাকা টেস্টেই।

এসএএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :