‘আইসিসি তো ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল নয় যে তাদের কথা শুনবে’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

এতদিন রাজনৈতিক বৈরিতা থাকলেও ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের মধ্যে একটা সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। কাশ্মীর হামলার পর সেটাও ভাঙতে বসেছে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) তো পাকিস্তানকে আসন্ন বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। যা দেখে রীতিমত ক্ষুব্ধ পাকিস্তানের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান জাভেদ মিয়াঁদাদ। ভারতীয় বোর্ডের এমন আচরণকে ‘নির্বুদ্ধিতা’ এবং ‘ছেলেমানুষী’ বলছেন তিনি।

ক্রিকেটে বিসিসিআইয়ের দাপটের কথা সবারই জানা। অার্থিক দিক বিবেচনায় তাদের উপর অনেকটাই নির্ভরশীল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। তাই ভারতের যে কোনো কথাকে বাড়তি গুরুত্ব দেয় তারা।

এবার যখন পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছে ভারত, তখন সবার মনেই একটা শঙ্কা-এই দাবিও না আবার মেনে নেয় আইসিসি। তবে জাভেদ মিয়াঁদাদ তেমনটা মনে করছেন না। তিনি বলেন, ‘আইসিসি তো আর ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল নয় যে তাদের কথা শুনবে!’

বিসিসিআইয়ের কার্যকলাপকে ‘নির্বুদ্ধিতা’ ও ‘ছেলেমানুষী’ আখ্যা দিয়ে বড়ে মিঁয়া বলেন, ‘আইসিসি বিসিসিআইয়ের নির্বোধ ও ছেলেমানুষী প্রস্তাব কখনই মেনে নেবে না। বিসিসিআইয়ের কথা শোনার কোনো সুযোগ আইসিসির নেই কারণ তাদের সংবিধানেই আছে আইসিসির ইভেন্টে সদস্যদের অংশগ্রহণের অধিকারের কথা।’

শুধু ভারতীয় বোর্ড নয়, সৌরভ গাঙ্গুলির মতো ভারতের সাবেক অধিনায়ক পাকিস্তানের সঙ্গে সব ধরণের সম্পর্কচ্ছেদ করার আহবান জানিয়েছেন। সাবেক অফস্পিনার হরভজন সিংও মনে করেন, আসন্ন বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সঙ্গে খেলা উচিত হবে না ভারতের।

জাভেদ মিয়াঁদাদ তো সৌরভকে একহাতই নিয়েছেন। পাকিস্তানের সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমার মনে হয় সৌরভ সামনে নির্বাচনে দাঁড়াবেন। সম্ভবত তিনি মুখ্যমন্ত্রী হতে চান, তাই লোক দেখিয়ে নজরে আসার জন্য এমন কথা বলছেন। ভারতের এসব কাপুরুষোচিত আচরণ দেখার সময় আমাদের নেই। আমাদের নিজেদের উন্নতির দিকে নজর দেয়া উচিত। পাকিস্তান সবসময়ই এসব বিষয়ে শান্তিপূর্ণ সমাধান চেয়েছে। কিন্তু ভারতীয়রা জবাব দিয়েছে নেতিবাচকতায়।’

এমএমআর/পিআর