সাকিবের ‘ক্ষুধা’ আর তামিমের সামর্থ্যে আস্থা রোডসের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৫ পিএম, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

সন্দেহাতীতভাবেই বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দুই সেরা পারফরমারের নাম সাকিব আল হাসান এবং তামিম ইকবাল। আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপেও এ দুই বন্ধুর ব্যাট-বলের দিকেই তাকিয়ে থাকবে বাংলাদেশ দল।

আজ (বৃহস্পতিবার) শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এ কথারই পুনরাবৃত্তি করলেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডস। তবে দুই বন্ধু সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের ব্যাপারে রোডসের মূল্যায়নটা দুই রকম।

বেশ কিছুদিন ধরে খেলার মধ্যে না থাকায় সাকিবের ভালো করার তীব্র ক্ষুধা এবং একজন বিশ্বমানের ক্রিকেটার হিসেবে তামিমের সামর্থ্যের প্রতি পুরোপুরি আস্থা রয়েছে টাইগার কোচের। তবে ম্যাচ না খেললেও আইপিএলে নিয়মিত অনুশীলনে থাকায় সাকিবের বর্তমান অবস্থার ব্যাপারে সন্তুষ্টিই প্রকাশ করেছেন স্টিভ রোডস।

সাকিবের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি সাকিব ভারতে থেকে আইপিএল খেলে আসাই ভালো হবে। হ্যাঁ এতে হয়তো শঙ্কাও থেকে যেতে পারে। তবে হায়দরাবাদের হয়ে এখন ২-৩ ম্যাচ খেলতে পারলেও সেটা ওর জন্য ভালো। এছাড়া সেখানে সে নিয়মিত অনুশীলন করছে। আমার মনে হয় তাকে মাঠে ফিট এবং শার্পই লেগেছে সেদিন। এটা সাকিবের জন্যই ভালো দিক। আমি আশা করবো পরবর্তী কয়েকম্যাচেও খেলবে সাকিব।’

Tamim

এসময় সাকিবের ভালো খেলার প্রতি ক্ষুধাকে ইঙ্গিত করে রোডস আরও বলেন, ‘এখন আমি বলতে পারি সাকিবের সঙ্গে দুইটি ব্যাপার ঘটছে। সে এখন ক্রিকেট খেলার জন্য ক্ষুধার্ত। যখন আপনি অনেক বেশি ক্রিকেট খেলেন তখন খেলাটার জন্য আপনার বাড়তি চাহিদা সৃষ্টি হয়। অন্য বিষয়টি হলো সে হায়দরাবাদের হয়ে খুব বেশি সুযোগ পায়নি। যে কারণে বড় মঞ্চে এখনো তার নিজেকে প্রমাণের রয়েছে অনেক কিছু। এতে বাংলাদেশ দলই লাভবান হবে আমার মতে।’

এদিকে তামিমের ব্যাপারে আবার ভিন্ন কথা রোডসের কণ্ঠে। তা হওয়াই স্বাভাবিক। কারণ সাকিবের মতো দীর্ঘদিন মাঠের বাইরে নন তামিম। খেলেছেন নিউজিল্যান্ড সফরেও। তবে নিউজিল্যান্ড থেকে ফিরে আর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে অংশ নেননি তামিম। বিশ্রামে থেকে নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করেছেন বিশ্বকাপের মতো বড় আসরকে।

তামিমের এ সিদ্ধান্তের প্রতি পূর্ণ আস্থা রেখে রোডস বলেন, ‘আমাদের দলের জন্য তামিম একটা বড় উদাহরণ। সে দারুণ একটা চরিত্র। নিজের করণীয় সম্পর্কে সে জানে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সফল হতে কী করতে হবে তাও ভালোই জানা তামিমের। ডিপিএল না খেলে সে ৩-৪ সপ্তাহের বিশ্রাম নিয়েছে কারণ বিশ্বকাপের মত আসরের গুরুত্ব সম্পর্কেও ধারণা রয়েছে তার।’

রোডস আরও বলেন, ‘এত বড় টুর্নামেন্ট খেলতে যাওয়ার আগে মানসিকভাবে চাঙ্গা থাকাতা বেশ গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। যাতে ব্যাটিং এবং ফিল্ডিংয়ে সেরাটা ঢেলে দেয়া যায়। তামিম এখন দারুণ ছন্দে রয়েছে। সে এমন একজন ক্রিকেটার যার প্রতি আমি ভরসা রাখতে পারি। আমি সবসময় তামিমের মতামতকে আলাদা গুরুত্ব দিয়ে থাকি। সে দারুণ একজন খেলোয়াড় এবং অনুকরণীয় চরিত্র।’

এসএএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :