নানাবাড়িতে প্রথম ইনিংসে ব্যর্থ সাইফ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:৫২ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০২১
২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অধিনায়ক সাইফ

প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কার মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলতে নেমেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ডানহাতি ওপেনার সাইফ হাসান। তিনি খেলছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জার্সি গায়ে, তবে সম্পর্কের টান রয়েছে শ্রীলঙ্কার সঙ্গেও। কেননা তার মায়ের বাড়ি যে শ্রীলঙ্কায়!

অর্থাৎ আজ নানাবাড়ি তথা নানার দেশে খেলতে নেমেছেন সাইফ। তবে সেই ম্যাচের প্রথম ইনিংসে কিছুই করতে পারলেন না ২২ বছর বয়সী এ ওপেনার। মাত্র ছয় বল খেলে রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরের পথ ধরেছেন ‘শ্রীলঙ্কার নাতি’ এই ব্যাটসম্যান।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম পাঁচ বল ডট খেলার পর শেষ বলটি আঘাত হানে তার পায়ে। শ্রীলঙ্কানদের জোড়ালো আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। তবে ম্যাচের প্রথম রিভিউ নিয়ে সাইফের বিদায় ঘণ্টা বাজান লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারাত্নে, শূন্য রানে ফিরতে হয় সাইফকে।

প্রথম ইনিংসে খারাপ করলেও, সাইফের সামনে সুযোগ থাকছে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ভালো কিছু করে নিজের নানার দেশে প্রথম ম্যাচটি রাঙিয়ে রাখার। অবশ্য টেস্ট ক্রিকেটে তার আগের তিন ইনিংস (০, ১৬ ও ৮) দেখলে আশার বেলুন ফোলানো যে কারও জন্যই বেশ কঠিন। এবার চতুর্থ ইনিংসেও শূন্য করার পর পঞ্চম ইনিংসে কেমন করেন সেটিই দেখার বিষয়।

উল্লেখ্য, সাইফের বাবা হাসান রেজা একজন বাংলাদেশি নাগরিক। তবে তার মা একজন শ্রীলঙ্কান। সাইফের বাবা সৌদি আরবে থাকা অবস্থায় দুজনের পরিচয়। সেখানেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা দুজন। এমনকি সাইফ জন্মের পর থেকে সৌদি আরবেই ছিলেন তারা।

jagonews24

পরে সাইফের বয়স যখন ১০ হয়, তখন বাংলাদেশে ফিরে আসে তার পরিবার। দেশে ফিরেই ছেলেকে ধানমন্ডির একটি একাডেমিতে ক্রিকেট অনুশীলনে ভর্তি করিয়ে দেন বাবা হাসান রেজা। শুরু থেকেই অমিত সম্ভাবনাময় সাইফ ২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের নেতৃত্বও দিয়েছেন।

ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক ভালো খেলার পুরস্কার হিসেবে গতবছরের ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তান সফরে টেস্ট অভিষেক হয় সাইফের। তবে সেই ম্যাচে ০ ও ১৬ রানের বেশি করতে পারেননি তিনি। পরে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের একমাত্র ইনিংসে ৮ রানে আউট হয়ে যান। ফলে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে খেলা হয়নি তার।

এক সিরিজ বিরতি দিয়েই টেস্ট দলে ফিরলেন তিনি, সেটিও কি না নিজের নানার দেশের মাঠে। তবে নানার দেশে গেলেও নানাবাড়িতে যাওয়া হচ্ছে না সাইফের। কেননা করোনাভাইরাসের কারণে জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থাকতে হচ্ছে তাকে। আগামী ৪ মে দলের সঙ্গেই সোজা দেশে ফিরে আসবেন সাইফ।

তবে এর আগে বয়সভিত্তিক বা ‘এ’ দলের হয়ে যতবারই শ্রীলঙ্কা গেছেন, ততবারই নানাবাড়ির লোকজনের সঙ্গে দেখা করে এসেছেন সাইফ। ২০১৬ সালে প্রথম শ্রীলঙ্কায় বয়সভিত্তিক ক্রিকেট খেলতে যান সাইফ। সেখানেই সাইফের মায়ের পরিবারের সঙ্গে তাঁর প্রথম সাক্ষাৎ। এছাড়া ২০১৯ সালে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়েও লঙ্কা সফর করেছেন সাইফ।

এসএএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]