মুশফিকের কাছ থেকে বরং সমর্থন পাচ্ছেন সোহান

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৫১ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

মুশফিকুর রহিম কি কিপিং করতে না পেরে নাখোশ? তার বদলে যাকে দেয়া হয়েছে কিপিংয়ের দায়িত্ব, সেই নুরুল হাসান সোহানের ওপর কি ভেতরে ভেতরে অসন্তুষ্ট? ক্ষোভ থেকেই কি টেস্টের মত টি-টোয়েন্টির কিপিংও ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত মিস্টার ডিপেন্ডেবলের? এমন প্রশ্ন অনেকের মনেই।

গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে সেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর দুদিন আগে থেকেই। যেদিন হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলেছিলেন, সোহান আর মুশফিক দুটি করে ম্যাচে কিপিং করবেন। প্রথম দুই ম্যাচ সোহান, পরের দুটিতে মুশফিক। যিনি ভালো করবে, তাকেই দেয়া হবে পঞ্চম তথা শেষ ম্যাচে কিপিংয়ের দায়িত্ব।

বলার অপেক্ষা রাখে না, কিউইদের সাথে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে আর গ্লাভসই হাতে নেননি মুশফিক। পুরো সিরিজে কিপারের ভূমিকায় ছিলেন সোহান।

মাঠের বাইরে অনেক কথা শোনা গেলেও প্র্যাকটিসে দেখা গেছে অন্য চিত্র। যা দেখে মনেই হয়নি মুশফিক খেপে আছেন কিংবা সোহানকে হিংসা করছেন।

বরং প্রতিদিন অনুশীলনে কিপার সোহানকে প্র্যাকটিসে সহায়তা করেছেন মুশফিকই। অনুশীলনে রীতিমত সোহানের কোচের ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। বিভিন্ন সময় প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতেও দেখা গেছে।

আজ সোহানও তাই জানালেন। অকপটে স্বীকার করলেন, ‘শুধু সিরিজের শেষ ম্যাচের আগে নয়। মুশফিক ভাই তো ১৬-১৭ বছর ধরে বাংলাদেশ দলে খেলছেন। শুধু বাংলাদেশ না, বিশ্বের সেরা উইকেটরক্ষকদের একজন তিনি। আমি সবসময়ই চাই যে তার কাছ থেকে অভিজ্ঞতা ও যে জিনিসগুলো শেখার আছে শিখে নিতে। সবসময় সেসব নিয়ে কথা হয়।’

দলের বাইরে থাকা অবস্থায়ও মুশফিক অনেক সাহায্য করেছেন জানিয়ে সোহান বলেন, ‘এমনকি যখন জাতীয় দলের বাইরে ছিলাম তখনও ফিটনেস, ব্যাটিং ও উইকেটকিপিং নিয়ে সবসময় কথা হতো। সবসময়ই তার কাছ থেকে সমর্থন পেয়ে থাকি।’

এআরবি/এমএমআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]