এখনই আর্জেন্টিনা-ইংল্যান্ড ফাইনাল দেখছেন বেকহ্যাম

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৯ পিএম, ২১ জুন ২০১৮

বিশ্বকাপ শুরু হয়ে যাওয়ার পরও দেখা মিলছিল না তার। মূলতঃ ফুটবল ছেড়ে দেয়ার পর বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গেই নিজেকে জড়িয়েছেন বেশি। এ কারণে, সাবেক ইংল্যান্ড অধিনায়ক ডেভিড বেকহ্যামের সময় কাটে এখন ফুটবলের বাইরের দুনিয়ার সঙ্গেই। যে কারণে বিশ্বকাপ শুরু হওয়া, এমনকি ইংল্যান্ডের প্রথম ম্যাচ চলে যাওয়ার পরও দেখা মিলছিল না ম্যানইউ এবং রিয়াল মাদ্রিদ কিংবদন্তির।

অবশেষে দেখা মিললো তার। চীনের একট প্রোমোশনাল ইভেন্টে যোগ দিতে গিয়ে বেকহ্যাম কথা বলেছেন বিশ্বকাপ নিয়ে। সেখানে তিনি নিজের দেশ ইংল্যান্ডের তুমুল সম্ভাবনার কথাই তুলে ধরেছেন। সাবেক ইংলিশ অধিনায়কের মতে, ১৫ জুলাই লুঝনিকি স্টেডিয়ামের ফাইনালে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড এবং লিওনেল মেসির দেশ আর্জেন্টিনা।

তিউনিসিয়ার বিপক্ষে হ্যারি কেইনের জোড়া গোলে ২-১ ব্যবধানে দারুণ এক জয় দিয়ে শুরু হয়েছে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ অভিযান। যদিও ম্যাচটি ছিল খুবই কঠিন। একেবারে শেষ মুহূর্তে এসে কেইনের হেডে গোল করে থ্রি লায়ন্সদের জেতান ইংল্যান্ডের বর্তমান অধিনায়ক। এই জয়ের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার পথে অনেকটাই এগিয়ে থাকলো ইংলিশরা।

বিশ্বকাপ হোক কিংবা ইউরো, বড় মঞ্চে সব সময়ই সংগ্রাম করতে হয় ইংল্যান্ডকে। সেই সর্বশেষ ২০০৬ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল ইংলিশরা। সেবার বেকহ্যামই ছিলেন দলের অধিনায়ক। বিশ্বকাপে একবারই ফাইনাল খেলেছিল ইংলিশরা। সেটা ১৯৬৬ সালে। ঘরের মাঠ থেকে সেবার বিশ্বকাপও জিতেছিল ইংল্যান্ড।

চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে একটি অনুষ্ঠানে মন্তব্য করতে গিয়ে বেকহ্যাম বলেন, ‘আমার বিশ্বাস ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষেই খেলবে ইংল্যান্ড। আমার চিন্তা, অবশ্যই ইংল্যান্ড এবার বিশ্বকাপ জিতবে এবং সেটা লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে। নিজের দেশের প্রতি টান এবং আবেগ থেকেই বলছি আমি।’

তবে, তিনবার বিশ্বকাপ খেলা এই ইংলিশ ফুটবলার একই সঙ্গে ইংল্যান্ড ফুটবল দলকে সতর্কও করে দিয়েছেন। তাদেরকে তিনি জানিয়ে রাখলেন, সামনের পথটা মোটেও সহজ নয়। খুবই কঠিন। গ্যারেথ সাউথগেটের শিষ্যদেরকে সেই কঠিন পথই পাড়ি দিতে হবে।

প্রথম ম্যাচ জয়ের কারণে দারুণ খুশি বেকহ্যাম। তিনি বলেন, ‘আমি খুবই খুশি যে, গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচটা জিতে নিয়েছি। ইংল্যান্ড খুবই তরুণ একটি দল। হয়তো তাদের খুব বেশি অভিজ্ঞতা নেই এবং বিশ্বকাপে তাদের সামনের যাত্রাটা খুবই কঠিন থেকে কঠিনতর হবে। কারণ, টুর্নামেন্টে আরও অনেকগুলো ভালো ভালো দল রয়েছে।’

ইংল্যান্ড ফাইনাল খেলবে- বেকহ্যামের এমন প্রত্যাশার বেশ কিছু কারণও রয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম বড় দলগুলোর একের পর এক হোঁচট খাওয়া। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জার্মানি হেরে গেছে মেক্সিকোর কাছে। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা এবং স্পেন প্রথম ম্যাচ ড্র করেছে। যদিও স্পেন পরের ম্যাচে ইরানকে হারিয়ে নিজেদের সম্ভাবনা টিকিয়ে রেখেছে।

সঠিকভাবে এগুতে থাকলে হয়তো বা সেমিফাইনাল কিংবা ফাইনালেই দেখা হবে মেসির আর্জেন্টিনা এবং বেকহ্যামের দেশ ইংল্যান্ডের।

আইএইচএস/পিআর