কক্সবাজারের সবকিছু এখন লিটনের অনলাইনে

আরিফুল ইসলাম আরমান
আরিফুল ইসলাম আরমান আরিফুল ইসলাম আরমান
প্রকাশিত: ০৩:৪৯ এএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

খুব অল্প সময়ে বাংলাদেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ই-কমার্স। আর এ জনপ্রিয়তার মূল চালিকা শক্তি হচ্ছে তরুণ উদ্যোক্তা। বাংলাদেশের অনেক উদ্যমী তরুণ এখন ই-কমার্স ব্যবসার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। তেমনি একজন উদ্যমী তরুণ লিটন দেবনাথ সৈকত। তার উদ্যোগের কথা জানাচ্ছেন আরিফুল ইসলাম আরমান

কক্সবাজারে বসে ই-কমার্স ওয়েবসাইট কক্সবাজার ই-শপ.কম (www.coxsbazareshop.com) এর মাধ্যমে দেশজুড়ে বিক্রি করছেন শুটকি, বার্মিজ আচারসহ নানা জিনিস।

২০০৪ সালে কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট শিখে কক্সবাজার শহরে স্টেশনারি ও কম্পোজের ছোট্ট দোকান দেন লিটন। শিখতে থাকেন গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ। প্রতিষ্ঠা করেন ওয়েব আর্ট আইটি নামে একটি প্রতিষ্ঠান। ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে শুরু করেন কক্সবাজার ই-শপ.কম।

শুরুর গল্প
পর্যটন কেন্দ্র কক্সবাজারে সারাবছরই দেশ-বিদেশ থেকে অসংখ্য পর্যটক ঘুরতে যান। ফেরার সময় সঙ্গে নিয়ে ফিরেন কক্সবাজারের শুটকি মাছ, বার্মিজ আচারসহ হরেক রকমের প্রসাধনী। যা কক্সবাজার ছাড়া পাওয়া দুষ্কর। এ চিন্তা থেকেই লিটনে ই-শপের যাত্রা শুরু।

বর্তমানে সামুদ্রিক লইট্যা, ছুরি, কোরাল, রূপচাঁদার শুটকি ছাড়াও আচার, চকলেট, আদিবাসীদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক, শামুক-ঝিনুকের তৈরি বিভিন্ন শোপিস অনলাইনে অর্ডার নিয়ে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে সরবরাহ করছেন লিটন।

তবে ই-কমার্স বান্ধব কুরিয়ার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান না থাকায় প্রতিনিয়ত তিনি নানা রকম প্রতিবন্ধকতার শিকার হচ্ছেন। এছাড়া তিনি অনলাইনে অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রেও ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।



লিটন বলেন, ই-কমার্স ব্যবসার প্রসার ঘটাতে হলে কুরিয়ার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে আন্তরিক হতে হবে। একই সঙ্গে অনলাইনে অর্থ লেনদেন ব্যবস্থা আরও ব্যবহারবান্ধব হওয়া প্রয়োজন।

তিনি বলেন, ই-কমার্স এর নামে অনলাইনে নানা ধরনের প্রতারণা চলছে। এজন্য অনেকেই অনলাইনের মাধ্যমে পণ্য কেনার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। এজন্য কঠোর নজরদারি ও নীতিমালা প্রয়োজন।

এগিয়ে চলছে...
কক্সবাজার ই-শপের বয়স বেশি দিন না হলেও ক্রেতাদের কাছ থেকে লিটন অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছেন। নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে ক্রেতাদের সঠিক দামে ভালো মানের পণ্য সরবরাহ করার কারণেই লিটনের এ সাফল্য।

লিটন বলেন, আমরা সরাসরি মাঠ পর্যায় থেকে শুটকি সংগ্রহ করি। আমাদের পণ্যে কোনো কেমিক্যাল বা ফরমালিন ব্যবহার করি না। সাধারণত মাঠ পর্যায় থেকে ভোক্তাদের কাছে পৌঁছানোর পূর্ব পর্যন্ত শুটকি কয়েকবার হাত বদল হয়। এর ফলে শুটকির দাম প্রতি কেজিতে ১০০ থেকে ১০০০টাকা পর্যন্ত বেড়ে যায়। সরাসরি মাঠ থেকে শুটকি সংগ্রহ করার কারণে আমাদের অনলাইনে শুটকির দাম তুলনামূলক ভাবে কম।



প্রচারণা
কক্সবাজার ই-শপের প্রধান প্রচার মাধ্যম ফেসবুক পেইজ। এছাড়াও লিটন ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিভিন্ন মেলা ও অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছেন। এছাড়াও লিটন কক্সবাজার ই-শপ.কমকে যুক্ত করেছেন ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সঙ্গে।

আগামী আহ্বান
লিটন দেবনাথ সৈকত দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিদেশেও পৌঁছে দিতে চান কক্সবাজারের শুটকিসহ অন্যান্য পণ্য। বর্তমানে বিশ্বের ১৩টি দেশে কক্সবাজারের শুটকি পৌঁছানোর জন্য তিনি কাজ করছেন।

কক্সবাজার ই-শপ.কমকে লিটন একটি নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে চান। তবে ই-কমার্স ব্যবসায়, আগ্রহীদের ইচ্ছে শক্তি ও কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা নিয়ে সম্পৃক্ত হওয়ার পরামর্শ লিটনের।

ওয়েবসাইট : www.coxsbazareshop.com
ফেসবুক পেইজ : www.facebook.com/coxsbazarEshop
যোগাযোগের ঠিকানা : আমেনা শপিং সেন্টার, বৌদ্ধ মন্দির রোড, বার্মিজ মার্কেট, কক্সবাজার।
ফোন : ০৩৪১৫১২২০
মোবাইল : ০১৮৩৭৮৮১৯৯১
ই-মেইল : [email protected]

এএ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]