বন্ধ হয়নি ক্ষুদেবার্তার সেই বিড়ম্বনা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫১ পিএম, ২৫ এপ্রিল ২০২১ | আপডেট: ০১:৫০ পিএম, ২৬ এপ্রিল ২০২১
ফাইল ছবি

মোবাইল অপারেটরদের নিত্য নতুন সার্ভিসের বিজ্ঞাপন বন্ধ করলেও তা বন্ধ হচ্ছে না। গ্রাহকদের কাছে একের পর এক এসএমএস ও কলের মাধ্যমে এসব বিজ্ঞাপন আসার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। অনুসন্ধানে সেই অভিযোগের সত্যতাও মিলেছে।

২৪ এপ্রিল বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) জানায়, ক্ষেত্রবিশেষে গ্রাহকদের নিকট এসব এসএমএস বা ক্যাম্পেইন বিরক্তিকর বলে প্রতীয়মান হয়। তাই গ্রাহকদের সেবার মান আরও উন্নত করার লক্ষ্যে ‘ডু নট ডিস্টার্ব (ডিএনডি)’ সার্ভিসটি চালু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

কিন্তু অনেকে এসব বিজ্ঞাপন বন্ধ করেও সুফল পাচ্ছেন না। একের পর এক এসএমএস পাচ্ছেন তারা।

বেসরকারি টেলিভিশনে যমুনা টিভির ভিডিও জার্নালিস্ট তানভির মোর্শেদ জাগো নিউজকে বলেন, এয়ারটেলে কাজ হয় না। কাস্টমার কেয়ারে গিয়েও পুরোপুরি সমাধান হয়নি। সরকারি এসএমএস বাদে আগে প্রতিদিন ১০টা এমএসএস আসলে এখন একটা হলেও আসে। এ বিষয়ে এয়ারটেল অফিসে যোগাযোগ করেও কোনো সুরাহা হয়নি।

একই অভিযোগ করেন রাজধানীর উত্তর বাড্ডার এক বাসিন্দা। তিনি বলেন, বিটিআরসির ওই নোটিশ পাওয়ার পর প্রমোশনাল অফার বন্ধ করা হয়। কিন্তু এরপরও বাংলালিংকের বিভিন্ন প্রমোশনাল এসএমএস আসা থেমে নেই।

এ বিষয়ে বাংলালিংকের কমিউনিকেশন প্রধান আংকিত সুরেকা জাগো নিউজকে বলেন, আমরা সফটওয়ারের মাধ্যমে ক্যালেন্ডার হিসেবে আগেই ঠিক করে রাখি কবে কার কাছে এসএমএস যাবে। তাই গ্রাহকরা এই পদ্ধতি বন্ধ করলেও কয়েক দিন এসএমএস যেতে পারে। এটি একটি টেকনিক্যাল বিষয়। তবে আগামীতে এটা যাতে না হয় সেই ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এই ধরনের একই বক্তব্য পাওয়া গেছে অন্যান্য মোবাইল অপারেটরদের কাছ থেকেও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারকে ফোন দিলে তিনি মন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে আছেন বলে জানান। তাই কোনো কথা বলতে পারেননি।

প্রসঙ্গত, গ্রামীণফোন গ্রাহকরা বিজ্ঞাপনের এসএমএস বন্ধ করতে পারবেন- *১২১*১১০১# এই নম্বরে ডায়াল করে। পুনরায় অফার এসএমএস চালু করতে *১২১*১১০২# এই নম্বরে ডায়াল করতে হবে।

বাংলালিংক গ্রাহকদের ডায়াল করতে হবে *১২১*৮*৬# নম্বরে। রবি ও এয়ারটেল গ্রাহকরা এসএমএস বন্ধ করতে পারবেন *৭# নম্বরে ডায়াল করে।

এইচএস/জেডএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]