গিরগিটির মতো ক্ষণে ক্ষণে রং বদলাবে যে গাড়ি

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১৭ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০২২

রাস্তায় চলতে চলতে গাড়ি দেখে অনেক সময় মনে হয়, এমন রঙের একটা গাড়ি একদিন কিনব। নিজের একটি গাড়ি হবে, এই স্বপ্ন দেখেননা এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া একটু কষ্টকরই বটে! তবে কেনার সময় সাধ্যের মধ্যে মডেল জুতসই হলেও পছন্দের রঙের গাড়িটি আর পাওয়া যায় না। খানিকটা মনকষ্ট নিয়েই বাড়ি ফিরতে হয়। তবে এখন আর রং নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

চাইলে যে কোনো সময় গাড়ির রং পরিবর্তন করতে পারবেন। রং-বিভ্রাট দূর করতে এমনই গাড়ি নিয়ে আসছে বিএমডব্লিউ। যে গাড়ি ক্ষণে ক্ষণে গিরগিটির মতো রং বদলাতে পারবে! জার্মান এই গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থাটি সম্প্রতি লাস ভেগাসের সিইএস ২০২২ ইভেন্টে এই গাড়ির এক ঝলক দেখিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। গাড়ির নাম বিএমডব্লিউ আইএক্স ফ্লো (BMW iX Flow)।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ-এর একটি প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, এই বিএমডব্লিউ-র এই গাড়িটির কিন্ডলের সঙ্গে এর অনেকাংশেই মিল রয়েছে। এমন যুক্তি দেওয়ার পেছনে রয়েছে যথেষ্ট যুক্তিসঙ্গত কারণ। কিন্ডল-সহ বেশ কিছু ই-বুক রিডারে থাকছে ই-ইঙ্ক প্রযুক্তি। সেই প্রযুক্তিই ব্যবহৃত হয়েছে এই আধুনিকতম গাড়িটিতে।

তবে আপাতত এই বিএমডব্লিউ আইএক্স ফ্লো গাড়িটি বাজারে আসার সম্ভাবনা নেই একেবারেই। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ডেভেলপমেন্ট স্টেজে থাকা এই গাড়ি এই ডেমোটি কেবল মাত্র উন্নত গবেষণা এবং নকশা প্রকল্পের জন্যই ব্যবহার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, রং বদলানোর প্রযুক্তি যুক্ত গাড়ি এটিই বিশ্বের প্রথম। এই প্রযুক্তি যে বৈদ্যুতিক গাড়ির কর্মক্ষমতায় প্রভাব ফেলবে, সেই কথাটা একপ্রকার জোর দিয়েই বলছে বিএমডব্লিউ। বোতাম টিপলেই বদলে যাবে এই গাড়ির রং। গাড়িটিতে থাকবে উদ্ভাবনী পেন্ট স্কিম। আপাতত কেবল সাদা, কালো এবং ধূসর রঙেই বদলানো যাবে গাড়িটি।

এতদিন সাধারণত গাড়ির ভেতরে বা কেবিনের ক্ষেত্রে পার্সোনালাইজেশন ফিচার অর্থাৎ নিজের পছন্দ অনুযায়ী বিভিন্ন ফিচার অদলবদল করে নেওয়ার সুযোগ ছিল। তবে বিএমডব্লিউ-র এই নতুন কনসেপ্টের গাড়িতে বহিরাবরণের ক্ষেত্রে এমন পার্সোনালাইজেশন করা যাবে।

যদিও এই গাড়িটির উচ্চমানের প্রযুক্তির রং কতটা টেকসই হতে চলেছে এবং সেটি কতটাই বা চরম আবহাওয়া সহ্য করতে পারবে, সে বিষয়ে সংস্থার তরফ থেকে কিছু জানানো হয়নি। শীঘ্রই হয়তো এই গাড়ির সম্পর্কে আরও একাধিক তথ্য জানা যাবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

মূলত গাড়ির কালো পৃষ্ঠের চেয়ে অনেক বেশি সূর্যের আলো প্রতিফলিত হয় সাদা পৃষ্ঠে। ঠিক একই ভাবে সাদা গাড়ির চেয়ে অপেক্ষাকৃত বেশি গরম হয় কালো গাড়ি। এর ফলে গরম কালে সাদা রঙের গাড়ির এসি বন্ধ রেখে বা কমিয়ে বিদ্যুৎ অনেকখানিই সাশ্রয় করা যাবে। আবার শীতকালে কালো গাড়ি এমনিই সেটিকে গরম করে রাখবে। বিএমডব্লিউ আইএক্স ফ্লো গাড়িতে এত সব কিছু একই সঙ্গে হবে, যা সচরাচর আলাদা আলাদা গাড়িতে হয়ে থাকে। এমনটাই বলছেন বিএমডব্লিউ রিসার্চ ইঞ্জিনিয়ার স্টেলা ক্লার্ক।

সূত্র: দ্য ভার্জ

কেএসকে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]