ফুলের নাম পাখিফুল

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২৪ পিএম, ০১ অক্টোবর ২০১৮

আমাদের দেশে বসন্তকালে যে কয়টি ফুল চারপাশ আলোকিত করে ফোটে, পাখিফুল তাদের মধ্যে অন্যতম। দুর্লভ এ ফুলটি আমাদের জাতীয় পতাকার কথাই স্মরণ করিয়ে দেয় এর লাল-সবুজ রঙের কারণে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন মঞ্জুর মোর্শেদ রুমন-

পাখিফুল এর বৈজ্ঞানিক নাম Brownea Coccinea। এই ফুলের জন্মস্থান ভেনেজুয়েলায়। তাই এর প্রচলিত নাম রোজ অব ভেনেজুয়েলা। প্রজাতিটি গায়ানা, ভেনেজুয়েলা, ব্রাজিল এবং ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর স্থানীয়। এটি সাধারণত জায়ারে, মরিশাস ও সেশেলসহ অন্যান্য দেশে চাষ করা হয়।

বাংলায় কেউ ডাকে সুপ্তি, আবার কারো কারো কাছে এর নাম পারিজাত। তবে এ ফুলের পারিজাত নামটি সঠিক নয়। জানামতে, মান্দার ফুলের পোশাকি নাম পারিজাত। সেই অর্থে পারিজাতও স্বীকৃত নাম এবং তা কেবল মান্দারের আরেকটি নাম হিসেবেই পরিচিত।

pakhi-ful-in

পাখির লেজের মতো ঝুলে থাকে বলেই আমাদের দেশে এটি পাখিফুল হিসেবেই সর্বাধিক পরিচিত। মাঝারি আকৃতির চিরসবুজ গাছটি ৫-৭ মিটার পর্যন্ত উঁচু হয়। বসন্তকালে ফুল ফোটে। গুচ্ছ গুচ্ছ হয়ে ফোটা এ ফুল সারা গাছে লাল-সবুজ রঙে ছেয়ে যায়।

ফুলটিকে দেখলে আমাদের জাতীয় পতাকার কথা মনে পড়ে যায়। দুর্লভ এ ফুলের সবচেয়ে পুরনো গাছটি আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের পাশে। এছাড়া মহেশখালীর আদিনাথ মন্দির প্রাঙ্গণ, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানিক্যাল গার্ডেন, চট্টগ্রামের বৌদ্ধ বিহার ও নাটোরের উত্তরা গণভবনের প্রবেশপথের ধারে।

এসইউ/জেআইএম