আজকের রসালাপ: বীরবলের দুটি মজার গল্প

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২৬ এএম, ২২ অক্টোবর ২০২১
ছবি: সংগৃহীত

জল নয় চাষি কিনেছে কুয়ো
একবার এক চতুর ব্যক্তি তার নিজের পাত–কুয়োটিকে একজন চাষিকে বিক্রি করে দেন। তার পরের দিন যখন চাষি কুয়ো থেকে জল তুলতে গেলেন। তখন সেই ধূর্ত ব্যক্তি চাষিকে বলেন যে, তিনি চাষিকে কেবল কুয়ো বিক্রি করেছেন কিন্তু তার জল বিক্রি করেন নি।

তখন চাষিটি বুঝতে পারলেন না যে তিনি কি করবেন এবং বিষণ্ণ চিত্তে আকবরের সভায় গিয়ে উপস্থিত হলেন। তখন বীরবলকে এই মামলার তদারকি করতে বলা হল।

তার পরের দিনই কুয়ো বিক্রি করা লোকটির সঙ্গে সেই চাষিকেও রাজ দরবারে ডাকা হল। চতুর লোকটি তখন সেই একই কথা বললেন যে তিনি তার কুয়ো বিক্রি করেছে কিন্তু তার জল নয়।

এ কথা শুনে বীরবল বললেন, হে বন্ধু আমার! তবে তো তোমাকে এক্ষেত্রে হয় কুয়ো থেকে সব জল সরিয়ে ফেলতে হবে কিংবা সেই জল রাখার জন্য কর দিতে হবে কারণ কুয়োটি তো তোমার নয়, চাষির।

তখন বুদ্ধিতে হেরে গিয়ে অসহায় বোধ করে সেই ব্যক্তিটি তার ভুল বুঝতে পারেন এবং তার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

সম্রাটের মোরগ বীরবল
একবার সম্রাট আকবর তার প্রিয় মন্ত্রী বীরবলের সঙ্গে একটি কৌতুকপূর্ণ চালাকির খেলা খেলবেন বলে মনস্থ করলেন। তিনি তার বাকি সব মন্ত্রীদের কাছে তার পরিকল্পনাটি ব্যক্ত করলেন। তাদের সঙ্গে নিয়ে আলোচনাও করলেন তার পরিকল্পনা নিয়ে। সম্রাটের পরিকল্পনা মাফিক নির্ধারিত দিনে প্রত্যেক মন্ত্রী একটি করে ডিম আনলেন এবং সেগুলোকে তারা তাদের পোশাকের ভেতর লুকিয়ে রাখলেন।

পরদিন সম্রাট আকবর তার সভাসদদের বললেন যে, তিনি একটি স্বপ্ন দেখেছেন– সেই স্বপ্নানুযায়ী তিনি দেখেছেন যে, সভার প্রতিটি মন্ত্রী যদি রাজ–পুকুর থেকে একটি করে ডিম সংগ্রহ করে আনেন। তাহলে সেটি সম্রাটের প্রতি তাদের আনুগত্য প্রমাণ করবে। তার স্বপ্ন বর্ণনার পর, সম্রাট তার সব মন্ত্রীদের সেই কাজটি করার কথা বললেন যাতে তার প্রতি তার মন্ত্রীবর্গের আনুগত্য প্রকাশ পায়।

পরিকল্পনা অনুযায়ী সকল মন্ত্রী পরিষদ ডিমের খোঁজার অভিনয় করলেন। কোনো রকম সময় না নিয়েই তারা সবাই তাদের পোশাকের মধ্যে আগে থেকেই লুকিয়ে রাখা ডিমগুলোকে বের করে নিয়ে এলেন। বীরবলও ডিমের সন্ধানে গেলেন কিন্তু অনেক খোঁজাখুঁজি করে একটি ডিমও পেলেন না।

যখন বীরবল খালি হাতে ফিরে এলেন তখন প্রত্যেকেই তার সমালোচনা করলেন এবং নিজেদের মধ্যে হাসাহাসি করতে লাগলেন। বীরবল পুরো ব্যাপারটি বুঝতে পারলেন এবং সোজাসুজি সম্রাটের কাছে গিয়ে জোর গলায় মোরগের মত ডাকতে শুরু করলেন। সম্রাট কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে উঠলেন এবং বীরবলকে জিজ্ঞেস করলেন তিনি কেন এরকম আচরণ করছেন। যার প্রত্যুত্তরে বীরবল বললেন, হে রাজন! আমি কোনো মুরগি নই আর তাই কোন ডিম আমি আপনাকে এনে দিতে পারিনি। কিন্তু আমি একটি মোরগ হতে পারি আর সেজন্য আমি আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো এইরকম ডাক ডাকতে পারি। একথা শুনে প্রত্যেকেই উচ্চ হাসিতে ফেটে পড়লেন।

লেখা: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় পাঠক, আপনিও অংশ নিতে পারেন আমাদের এ আয়োজনে। আপনার মজার (রম্য) গল্পটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়। লেখা মনোনীত হলেই যে কোনো শুক্রবার প্রকাশিত হবে।

কেএসকে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]