শেকৃবিতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৪:২৩ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮

রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ।

এ সময় বক্তারা বলেন, তৎকালীন সময়ে দেশকে সঠিকভাবে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য মুজিবনগর সরকার গঠনের প্রয়োজনীয়তা ছিল অপরিহার্য। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে এই সরকার দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় অভূতপূর্ব অবদান রেখেছে। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা এবং দেশে ও বিদেশে এই যুদ্ধের পক্ষে জনমত গড়ে তোলা ও সমর্থন আদায় করার ক্ষেত্রে এই সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগ, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার শেখ রেজাউল করিম, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক চৌধুরী এম সাইফুল ইসলাম, শেকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম মাসুদুর রহমান মিঠু, সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধ শুরুর কিছুদিনের মধ্যেই ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত হয় বাংলাদেশের প্রথম প্রবাসী সরকার, যা মুজিবনগর সরকার নামে পরিচিত। ১৭ই এপ্রিল মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলা (বর্তমান উপজেলা মুজিবনগর) গ্রামের আমবাগানে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের বিপ্লবী সরকার শপথ গ্রহণ করেছিলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই সরকারের রাষ্ট্রপতি নিযুক্ত হন। তবে তিনি তখন পশ্চিম পাকিস্তানে কারাগারে বন্দী থাকায় উপ-রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। আর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন বঙ্গতাজ খ্যাত তাজউদ্দীন আহমদ। এই সরকার গঠনের পর থেকে অগণিত মানুষ দেশকে মুক্ত করার জন্য সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

মো. রাকিব খান/এমএমজেড/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :