চবিতে ছাত্রলীগের বাধায় পণ্ড শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক চবি
প্রকাশিত: ০৫:০৬ পিএম, ১৯ জুলাই ২০১৮

দুই শিক্ষককে ছাত্রলীগের হুমকি ও হেনস্থার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ছাত্রলীগের বাধায় পণ্ড হয়ে গেছে। এতে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন- ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ইমন কায়সার ও ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আরিফ ইসলাম।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সমাজবিজ্ঞান অনুষদ প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে। এতে সমাজতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষকবৃন্দও সংহতি জানায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সমাজতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক মাইদুল ইসলাম ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক খ. আলী আর রাজীকে হুমকি, অবাঞ্চিত ও হেনস্থার প্রতিবাদে মানববন্ধনে অংশ নেয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে ব্যানার নিয়ে দাঁড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে একদল ছাত্রলীগ কর্মী সেটি কেড়ে নেয়। তারপরেও সংহতি জানিয়ে শিক্ষকরা বক্তব্য দেয়া শুরু করলে ছাত্রলীগ কর্মীরা সেখানেও বাধা দেয়া চেষ্টা করে।

এদিকে একই সময়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। শিক্ষার্থীরা নিরাপদ স্থানে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলেও বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী ফের অনুষদের ভেতরে তাদের ধাওয়া দেয়। এদিকে দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতা-কর্মীদের ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরে ধাওয়ার শিকার নেতাকর্মীরা লাইব্রেরির একটি কক্ষে গিয়ে অবস্থান নেয় ।

বাধার বিষয়ে চবি ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আবু তোরাব পরশ বলেন, যারা ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে চায় তা কখনোই মানবে না ছাত্রলীগের কর্মীরা। শিক্ষার যে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রয়েছে তা চলমান রাখতে বদ্ধ পরিকর আমরা।

এদিকে মানবন্ধনে অংশ নেয়া নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক রাহমান নাসির বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় যেকোন ধরনের নিপীড়নের বিরুদ্ধে। তবে সেই নিপীড়নের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করতে গিয়ে যদি নিপীড়নের শিকার হয় তা একেবারেই অনাকাঙ্ক্ষিত। যারা মানববন্ধন করছে এবং বাধা দিচ্ছে তারা উভয়ই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা বিধি ১৯৭ অ্যাক্ট বঙ্গবন্ধু প্রণয়ন করেছেন। সেখানে প্রত্যেকের ভিন্নমত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হয়েছে।

তবে মানববন্ধনের পূর্ববর্তী ও পরবর্তী কোনো ঘটনা অবহিত করা হয়নি বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী। তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমাদের জানানো হলে আমরা তা দেখব।

আবদুল্লাহ রাকীব/আরএ/জেআইএম
বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :