চবিতে ছাত্রজোটের বিক্ষোভ মিছিলে ছাত্রলীগের হামলা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৩:০৩ পিএম, ১২ মার্চ ২০১৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে অনিয়মের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) প্রগতিশীল ছাত্রজোটের বিক্ষোভ মিছিলে হামলা করেছে ছাত্রলীগ। এতে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। এছাড়া ছাত্রজোটের চার নারী কর্মী লাঞ্ছিত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের চবি শাখার সভাপতি ও অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের খন্দকার আবিদ হাসান ও নাট্যকলা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের মুর্শেদ ওয়াসিক।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চবি মেডিকেল সেন্টারের চিফ মেডিকেল অফিসার আবু তৈয়ব জাগো নিউজকে বলেন, দুজনের মাথায় কিছুটা আঘাত রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

cu

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১২টার দিকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (চাকসু) ভবনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা৷ মিছিলটি লাইব্রেরির সামনে আসলে পেছন থেকে লাঠিসোটা নিয়ে ছাত্রলীগ কর্মীরা হামলা চালায়। এ সময় ব্যানার কেড়ে নেয়া হয়।

ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা দাবি করেন, হামলার প্রতিবাদ জানালে ছাত্রলীগ কর্মীরা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আওয়ামী লীগের বলে জানায়। এ সময় নারী কর্মীদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করে তারা। খবর পেয়ে পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রে পাঠায়।

চবি ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক গৌরচাঁদ ঠাকুর অপু বলেন, ডাকসু নির্বাচনে প্রহসন, অনিয়ম ও কারচুপির প্রতিবাদে চাকসুর সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে কতিপয় ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা লাঠিসোঁটা নিয়ে আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তারা নারী কর্মীদেরও লাঞ্ছিত করে। আমারা এ বিষয়ে প্রক্টর অফিসে লিখিত অভিযোগ করব।

চবি ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির উপ-দফতর সম্পাদক মিজানুর রহমান বিপুল জাগো নিউজকে বলেন, ক্যাম্পাসকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করে প্রগতিশীল ছাত্রজোট মিছিল বের করে। এ সময় ছাত্রলীগের নামে মিছিল থেকে কটূক্তি করা হলে আমাদের নেতাকর্মীরা তাদের প্রতিহত করে।

cu

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ছাত্র সংগঠনগুলো কোনো কর্মসূচি পালনের আগে প্রক্টর অফিসকে যদি অবহিত করতো তাহলে আমরা প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারতাম। তারপরও ঘটনা জানার পর তাৎক্ষণিক পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডি গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি আরও বলেন, চাকসু নির্বাচনের আগে ছাত্র সংগঠনগুলোর সহাবস্থান থাকা দরকার। ছাত্রসংগঠনগুলোর মধ্যে আন্তরিকতা না থাকলে পুলিশ দিয়ে ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিশ্চিত করা সম্ভব নয়।

এদিকে ক্যাম্পাস থেকে পুলিশি প্রহরায় ছাত্রজোটের নেতাকর্মীদের এক নম্বর গেইট দিয়ে যাওয়ার সময় দুপুর আড়াইটার দিকে তার ওপর ফের হামলা করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এতে ছাত্রজোটের অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আবদুল্লাহ রাকীব/আরএআর/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :