৫ মিনিটের মধ্যে দোকান বন্ধ করে চলে যেতে বললেন ছাত্রলীগ নেতা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৩ পিএম, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯
অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা আবু সায়েম মোহাম্মদ সানাউল্লাহ

নাস্তা দিতে দেরি করায় দোকানিকে মারধর করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

শুক্রবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে (এসএম হল) এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা হলেন আবু সায়েম মোহাম্মদ সানাউল্লাহ ওরফে অ্যাডওয়ার্ড সায়েম। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারী।

ভুক্তভোগী দোকানদারের নাম আজগর। দোকানে তিনি সাধারণ নাস্তা জাতীয় খাবার বিক্রি করেন। ওই দোকানদার বলেন, সায়েম ভাই সকালে এসে ডিম মামলেট খাইতে চায়। আমার দোকানের কর্মচারী জাহাঙ্গীর ডিম ভাজতে ছিল। ডিম ভাজার সময়ই তিনি তাড়াতাড়ি দিতে বলেন। এ সময় তিনি কর্মচারী ও আমাকে বিভিন্ন অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। আমি এর প্রতিবাদ করায় সে আমার গায়ে হাত তোলেন এবং ৫ মিনিটের মধ্যে দোকান বন্ধ করে চলে যেতে বললেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সায়েম বলেন, আমি সকালে নাস্তা করতে গিয়েছিলাম। আমার সঙ্গে এক বন্ধু এসেছিল। সে (দোকানি) নাস্তা দিতে দেরি করায় আমি তাড়াতাড়ি দিতে বলি। তারপর সে আমার সঙ্গে ধমকের সুরে কথা বললে, আমি চুপ থাকতে বলি। ব্যবসা ভালো করে না করতে পারলে চলে যেতে বলি। তাকে কোনো মারধর করিনি।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মাহবুবুল আলম জোয়ার্দার বলেন, আমি এ ঘটনা সম্পর্কে জেনেছি। বিষয়টি মীমাংসা হয়ে গেছে।

তবে মীমাংসার বিষয়ে কিছুই জানে না ভুক্তভোগী দোকানি আজগর।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সায়েমের বিরুদ্ধে পলাশীতে মারধর, শহীদ মিনারে সাংবাদিকের মোবাইল ভাঙচুর, ফোলার রোডে মোটর সাইকেল আটকে রেখে টাকা আদায়, হলের ক্যান্টিন, দোকানসহ আরও অনেক অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জেএইচ/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]