ভর্তি পরীক্ষায় যবিপ্রবিতে বসবেন ৬ হাজার শিক্ষার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৪:০০ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২১

শিক্ষার্থীদের যাতায়াত, থাকা-খাওয়ার সমস্যাসহ বিভিন্ন দুর্দশা লাঘবে প্রথমবারের মতো গুচ্ছ পদ্ধতিতে দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথমবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

রোববার (১৭ অক্টোবর) ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে এ পদ্ধতির যাত্রা শুরু হবে। গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) আসন পড়েছে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর।

জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ১৭ অক্টোবর ‘এ’ ইউনিটে বিজ্ঞান, ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিটে মানবিক এবং ১ নভেম্বর ‘সি’ ইউনিটে বাণিজ্য বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীদের দুপুর ১২টা-১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার জন্য পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগেই কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

যবিপ্রবির জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার আহ্বায়ক কমিটি থেকে জানানো হয়েছে, গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটভুক্ত ৬ হাজার শিক্ষার্থীর আসন পড়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবন, মাইকেল মধুসূদন দত্ত গ্রন্থাগার কাম একাডেমিক ভবন, ডা. এম আর খান মেডিকেল সেন্টার, শেখ রাসেল জিমনেসিয়াম ও টিএসসি ভবনে ‘এ’ ইউনিটভুক্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি পালনের জন্য বেশ কিছু শিক্ষার্থীর আসন শেখ রাসেল জিমনেসিয়াম থেকে পার্শ্ববর্তী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবন ও টিএসসি ভবনে স্থানান্তর করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে ডিজিটাল ব্যানারে রোল নম্বর, কেন্দ্র এবং ভবন নির্দেশক থাকবে। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের সহায়তা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রের সব ভবনের প্রবেশমুখে বিএনসিসিসহ অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবকরা থাকবেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিয়াশীল বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনও ভর্তিচ্ছু ছাত্র-ছাত্রীদের সহায়তা করবেন।

ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতির বিষয়ে যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটভুক্ত যে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর আসন পড়েছে, সেটি গ্রহণে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষার সময় যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে ও পরীক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পর্যাপ্ত পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োজিত থাকবেন। পরীক্ষার সময় কোনো পরীক্ষার্থী বা দায়িত্বরত কেউই মোবাইলফোনসহ কোনো ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন না। যদি কেউ ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করে বা অসদুপায় অবলম্বন করে, তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মিলন রহমান/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]