স্কুলছাত্রীর সঙ্গে দুই সন্তানের জনকের কাণ্ড

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জামালপুর
প্রকাশিত: ১২:৩৭ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০১৭
স্কুলছাত্রীর সঙ্গে দুই সন্তানের জনকের কাণ্ড

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় রোববার বিকেলে নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মেলান্দহ থানায় মামলা করেছেন। শনিবার বিকেলে দুরমুঠ রেলস্টেশন থেকে অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে মেলান্দহ থানা পুলিশ।

অভিযুক্ত মো. মোজাম্মেল হক মেলান্দহের নয়ানগর ইউনিয়নের মেঘারবাড়ি গ্রামের নওয়াব আলীর ছেলে। তিনি দুই সন্তানের জনক।

মেলান্দহ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজহারুল করিম জানান, কিশোরী মেলান্দহের শ্যামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী (১৪)। সে নয়ানগর ইউনিয়নের নয়ানগর গ্রামে নানির সঙ্গে থাকতো।

গত বুধবার বিকেলে ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে বের হয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় মেঘারবাড়ি গ্রামের দুই সন্তানের জনক মোজাম্মেল হক (৩৫) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে তুলে নিয়ে যায়।

এরপর বিভিন্ন স্থানে রেখে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করলে অসুস্থ হয়ে পড়ে। শনিবার বিকেলে ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীকে অসুস্থ অবস্থায় ঢাকা থেকে কমিউটার ট্রেনে এনে মেলান্দহের দুরমুঠ রেলস্টেশনে ফেলে রেখে মোজাম্মেল পালিয়ে যান।

খবর পেয়ে মেলান্দহ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে প্রথমে মেলান্দহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে জামালপুর জেনারেল হাপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় রোববার বিকেলে নির্যাতিত কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে মোজাম্মেল হককে আসামি করে মেলান্দহ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

শুভ্র মেহেদী/এএম/আইআই