ছাত্রলীগের দ্বারা কোথাও কেউ যেন বিব্রত না হয় : সোহাগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ১২:১৭ পিএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার আহ্বান জানিয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেছেন, সোনার মানুষ হতে হবে ছাত্রলীগকে। ছাত্রলীগ হচ্ছে সোনার মানুষ। আর সোনার মানুষ হতে হলে নিয়মিত পড়াশোনা করতে হবে। নইলে মানুষ হওয়া যাবে না।

মঙ্গলবার দুপুরে শহরের নওযোয়ান মাঠে জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত বার্ষিক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সোহাগ বলেন, ছাত্রলীগ থেকে কেউ কখনও বিদায় নেয় না। সবাই সাময়িকের জন্য অব্যাহতি নেয় মাত্র। ছাত্রলীগের দ্বারা কোথাও কেউ যেন বিব্রত না হয়। বড়দের সব সময় সম্মান করে চলতে হবে। ছাত্রলীগের অতীত ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে বর্তমান ছাত্রদের চলতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। মাদককে না বলতে হবে।

অনুষ্ঠানে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাহমানিয়া আলম রিজভীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায়ের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এম সাইদুর রহমান।

এসময় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি অনিকা ফারিহা জামান অর্ণা, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক উপ-সম্পাদক তামিম ইসলাম, কৃষি শিক্ষাবিষয়ক উপ-সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক বেলাল হোসেন বিদ্যুৎ, স্কুলছাত্রবিষয়ক উপ-সম্পাদক নূর মুনজেরীন রিমঝিম, ঢাকা মহানগর শাখার যুগ্ম সম্পাদক মুরাদ মোবারক এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি আপেল মাহমুদ।

উপস্থিত ছিলেন, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মালেক এমপি, সাধারণ সম্পাদক সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি, যুগ্ম সম্পাদক ইসরাফিল আলম এমপি, ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক শাকিল আহমেদ বাদল, ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জলিল জনসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ে অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং জেলার ১১টি উপজেলা থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, ছাত্রলীগ হচ্ছে অন্ধকারের মধ্যে এক খণ্ড চাঁদ। যা অন্ধকারকে আলোকিত করে। আমরা যারা তরুণ প্রজন্ম তাদের অনেক কিছুই শেখার আছে। বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে তরুণরাই অগ্রণী ভূমিকা রাখে। মেধা ও মননে নিজেদের সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হবে।

সম্মেলনের আগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও ফেস্টুন এবং শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

আব্বাস আলী/এমএএস/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :