যশোরে আশ্রমের অধ্যক্ষসহ ৪ জনকে পিটিয়ে জখম

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৬:২৩ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তার ও ঘেরে পানি সেচ দেয়াকে কেন্দ্র করে একটি আশ্রমের অধ্যক্ষসহ চারজনকে পিটিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার গভীর রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- মণিরামপুর বাজার এলাকার মৃত মদন মোহন দাসের ছেলে বাহাদুরপুর তপোবন আশ্রমের অধ্যক্ষ গৌতম দাস মহারাজ (৪৬), বাহাদুরপুর এলাকার রঞ্জন দাসের ছেলে চন্ডি দাস (২৮), নিমাই দাসের ছেলে রাজেন দাস (৪৫) ও রাজেন দাসের স্ত্রী নমিতা রানী দাস (৪০)।

আহতদের মধ্যে গৌতম দাস ও নমিতা দাস যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি দুইজন মণিরামপুর হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। আহত গৌতম দাসের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

মণিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেন বলেন, ঘেরের পানি সেচকে কেন্দ্র করে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে আশ্রমের অধ্যক্ষসহ কয়েকজনকে বাঁশির লাঠি দিয়ে পিটিয়েছে উত্তেজিত জনতা। ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে। জড়িতদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।

আহতদের মধ্যে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানান, আশ্রমের পাশে একটি বড় মাছের ঘের রয়েছে। যেখানে মাছের চাষ হয়। এই ঘের নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছিল। রোববার পাম্প দিয়ে পানি সেচের কাজ চলছিল। এ সময় একপক্ষ এসে পাম্প বন্ধ করে দেন। পাম্প বন্ধ করাকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

যশোর সদর হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের চিকিৎসক অজয় কুমার সরকার বলেন, আহতদের মাথার আঘাত গুরুতর। সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। একজনের হাত ভেঙে গেছে। ২৪ ঘণ্টা পার না হলে কিছু বলা যাচ্ছে না।

মিলন রহমান/আরএআর/আইআই