রাজবাড়ীতে ১৩৩/৩২ কেভি উপকেন্দ্রের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ০২:৩৭ পিএম, ২৮ মার্চ ২০১৮
রাজবাড়ীতে ১৩৩/৩২ কেভি উপকেন্দ্রের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের চরবাগমারা এলাকায় পিজিসিবি লিমিটেডের রাজবাড়ী ১৩২/৩৩ কেভি উপকেন্দ্রের উদ্বোধনের মাধ্যমে দূর হতে যাচ্ছে রাজবাড়ীবাসীর দীর্ঘ দিনের বিদ্যুৎ সমস্যা। মঙ্গলবার এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পিজিসিবি কর্মকর্তাসহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

রাজবাড়ী ১ আসনের সংসদ সদস্য ও শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী জানান, রাজবাড়ী বাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল রাজবাড়ীতে একটি সাব স্টেশন হবে এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের মধ্যে দিয়ে সে দাবি আজ পূরণ হচ্ছে। এতে রাজবাড়ী ফরিদপুরের মধ্যে বিদ্যুৎতের বৈষম্য দূর হবে। এ সাব স্টেশনটি সম্পন্ন হলে রাজবাড়ীবাসীর লোডশেডিং এবং ভোগান্তি থেকে বাঁচবে। এছাড়া কলকারখানা ও কৃষির উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে। এ সাব স্টেশনের ফলে রাজবাড়ীবাসীকে আর বিদ্যুতের জন্য ফরিদপুর বা কুষ্টিয়ার দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে না।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল জব্বার ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা জানান, এ সাব স্টেশনটি স্থাপনের মাধ্যমে তাদের দীর্ঘ দিনের চাওয়া পূরণ হতে চলেছে এবং বিদ্যুৎ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চলেছেন। এর মাধ্যমে কৃষি, কলকারখানা, শিক্ষাসহ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়নে ছোয়া লাগবে। এতে তারা আনন্দিত ও উৎসাহিত এবং প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

RAJBARI-PAWER-1

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মো.শওকত আলী জানান, আমাদের নিজস্ব বিদ্যুৎ সাব স্টেশন তৈরি করা হচ্ছে। পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিডেট সাব স্টেশনটির বাস্তবায়ন করবে। এ কাজে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৭৫ কোটি টাকা, যা আগামী দুই বছরের মধ্যে সম্পন্ন হবে। এ উপকেন্দ্রটির ধারণ ক্ষমতা ৯৫ মেগাওয়াট । এর মাধ্যম দিয়ে আগামী বিশ বছরের রাজবাড়ী বাসীর বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ হবে এবং প্রয়োজন হলে এ ধারণ ক্ষমতা বাড়ানো যাবে। এটি নির্মাণের মাধ্যমে সমগ্র জেলায় বিদ্যুৎ সঞ্চলান করা যাবে।

পিবিসিজি তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী প্রকল্প পরিচালক একেএম মাউন মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, এ কেন্দ্রটিতে প্রায় ১৩০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আনা যাবে। কাজের সময় দুই বছর হলেও তারা ১৮ মাসের মধ্যে কাজটি শেষ করবেন বলে আশা করছেন।

রুবেলুর রহমান/আরএ/পিআর