সখীপুর থানায় আছে সুমাইয়া, স্বজনরা যোগাযোগ করুন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ১৩ এপ্রিল ২০১৮
সখীপুর থানায় আছে সুমাইয়া, স্বজনরা যোগাযোগ করুন

টাঙ্গাইলের সখীপুরে ফারজানা আক্তার সুমাইয়া নামে নয় বছর বয়সী এক মেয়েকে পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের কীর্ত্তনখোলা এলাকায় মেয়েটিকে পাওয়া যায়। ফারজানা বর্তমানে সখীপুর থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

জানা যায়, ওই গ্রামের চৌকিদার মো. ফারুক হোসেন রাস্তার পাশে মেয়েটিকে কান্না করতে দেখে তার কাছে যান। পরে তিনি মেয়েটিকে সখীপুর থানায় পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি জানায়, তার নাম ফারজানা আক্তার সুমাইয়া। বাবার নাম জাহিদুল ইসলাম। মায়ের নাম নাবিজা ওরফে ময়না। গ্রামের নাম আদাইসা মছিমপুর। তার বাবা মাটি কাটার কাজ করেন। বড় ভাই নয়ন ও ছোট বোন জান্নাতুল। দাদা নবাব আলি ও নানা মছবর আলি তাদের বাড়ি বিক্রমপুর। তবে মেয়েটি নিজ উপজেলা ও জেলার নাম বলতে পারছে না।

Tangail-Chaild-Missing-1

সুমাইয়া জানায়, সে ক্লাস থ্রি-তে পড়ে। তার বিদ্যালয়ের ক্লাসে রফিক স্যার বাংলা, রেবেকা ম্যাডাম গণিত ও শফিক স্যার ইংরেজি পড়াতো। কিন্তু সে তার স্কুলের নাম বলতে পারছে না।

সখীপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হক ভূইয়া বলেন, মেয়েটি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে এবং পুলিশের পক্ষ থেকে শিশুটির প্রকৃত স্বজনদের সনাক্ত করা চেষ্টা চলছে। মেয়েটি জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে তার বাবা মাটি কাটা শ্রমিকের কাজ করে। মঙ্গলবার সকালে পায়ে হেঁটে সে তার বাবার কাছে যাওয়ার জন্য রওনা হলে পথ ভুলে যায়। শিশুটির প্রকৃত স্বজনদের সখীপুর থানার ০১৭২৪-৮৯৭১৫৪ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সখীপুর সমাজসেবা কর্মকর্তা মনসুর আহমেদ বলেন, মেয়েটির সঙ্গে কথা বলে আমরা তার ঠিকানা খোঁজার চেষ্টা করছি। পরিচয় পাওয়া গেলে মেয়েটিকে তার অভিভাবকদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে। আর পরিচয় পাওয়া না গেলে সমাজসেবা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে টাঙ্গাইল সরকারি বালিক শিশু পরিবার (বালিকা) কেন্দ্রে পাঠানো হবে।

আরিফ উর রহমান টগর/এমএএস/পিআর