মাদকের টাকায় এমপির ছেলে কোটিপতি, অভিযোগ ছাত্রলীগের

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বরগুনা
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ২৮ এপ্রিল ২০১৮

বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে অ্যাডভোকেট সুনাম দেবনাথ মাদক ব্যবসা করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে জেলা ছাত্রলীগ। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে এনে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে বরগুনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বরগুনার তরুণ সমাজ এখন ইতিহাসের ভয়ঙ্করতম সময় পাড় করছে। আগে শুনেছি কাজের বিনিময়ে খাদ্য মানে ‘কাবিখা’। কাজের বিনিময়ে টাকা মানে ‘কাবিটা’। অপ্রিয় হলেও সত্য এখন সেখানে শুনতে হচ্ছে ‘মাবিরা’ মানে মাদকের বিনিময়ে রাজনীতি। মাদকের বিনিময়ে এখন অনেক তরুণই মিছিলে যায়। একটি ফেনসিডিল আর দুইটি ইয়াবার বিনিময়ে অনেক তরুণই এখন ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে পক্ষ-বিপক্ষের নেতার প্রচার-অপপ্রচার চালায়।

জুবায়ের আদনান অনিক বলেন, বরগুনার চিহ্নিত সব মাদক ব্যবসায়ীর নেতৃত্ব দেন খোদ এমপির ছেলে সুনাম দেবনাথ। কৌশলে বরগুনার অধিকাংশ তরুণকে তিনি মাদক সেবন ও মাদক বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে ব্যক্তিকেন্দ্রিক রাজনীতিতে টানছেন। বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদকের পদ ও পদবী ব্যবহার করে মাদক বাণিজ্যের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার মালিক তিনি। বরগুনার অধিকাংশ মাদকসেবী এবং চিহ্নিত সব মাদক ব্যবসায়ী তার ছত্রছায়ায় থাকেন।

তিনি আরও বলেন, বরগুনার গণবিচ্ছিন্ন একজন এমপির একমাত্র ছেলের কাছে জিম্মি এখন অধিকাংশ মানুষ। সকাল-বিকাল চারটা ফেনসিডিল না খেলে যার শরীর ভালো থাকে না।

জুবায়ের আদনান অনিক বলেন, বরগুনার শীর্ষ সন্ত্রাসী অভিজিৎ তালুকদার ওরফে অভি সুনাম দেবনাথের শ্যালক। যার নামে ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ, ধর্ষণ, জমি দখল এবং চাঁদাবাজিসহ ১৫ থেকে ১৬টি মামলা রয়েছে। একের পর এক ভয়ঙ্কর সব অপরাধ করেও এমপির ছেলে সুনাম দেবনাথের সহযোগিতায় অভি পার পেয়ে যান।

এসব অভিযোগের বিষয়ে সুনাম দেবনাথ বলেন, আমার সঙ্গে যারা থাকেন তারা কে কী করেন তা খোঁজ রাখা সম্ভব নয়। আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্যে একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার চলাচ্ছে।

বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু বলেন, আমার ছেলে যদি মাদক ব্যবসা করে তবে পুলিশ তা খতিয়ে দেখুক। জনগণও যাচাই করুক কারা প্রকৃতপক্ষে মাদক ব্যবসা করে।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসাইন, সহ-সভাপতি ইলিয়ান আকন, আনিসুজ্জামান তুহিন, মাহফুজ আল নাসিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজোয়ানুল ইসলাম বাবু, আমতলী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান, তালতলী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সরোয়ার হোসেন স্বপন প্রমুখ।

মো. সাইফুল ইসলাম মিরাজ/আরএ/আরএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]