গাজীপুরে আবাসিক হোটেলে হাতেনাতে ধরা ১৯ তরুণ-তরুণী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর
প্রকাশিত: ০৯:২২ পিএম, ২১ মে ২০১৮ | আপডেট: ০৯:২৪ পিএম, ২১ মে ২০১৮

রমজান মাসেও থেমে নেই গাজীপুরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলের অবৈধ যৌন ব্যবসা। নগরের চান্দনা চৌরাস্তা, তেলিপাড়া, কোনাবাড়ি, টঙ্গী, হোতাপাড়া, মাওনা চৌরাস্তা, এমনকি ভাওয়ালের বনে গড়ে প্রায় অর্ধশত আবাসিক হোটেলে চলছে জমজমাট দেহ ব্যবসা। যৌন ব্যবসার পাশাপাশি অনেক স্থানেই লেনদেন হয় মাদকদ্রব্য।

জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সোমবার গাজীপুরের ৫টি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্যসহ ১৯ তরুণ-তরুণীকে হাতেনাতে আটক করেছে পুলিশ। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার দুপুরে মহানগরীর বোর্ড বাজারের ময়নামতি আবাসিক, টঙ্গীর কাজী মার্কেটের মুন স্টার, হাজী জলিল মার্কেটের অনামিকা, বন্ধু এবং সানমুনসহ ৫টি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১৯ তরুণ-তরুণীকে আটক করা হয়। পরে তাদের কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের নির্দেশে এ অভিযান চালান গাজীপুরের এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিএম কুদরত-এ-খুদা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহরীন মাধবী, রাসেল মিয়া এবং জুবের আলম।

এনডিসি কুদরত-এ-খুদা বলেন, এসব হোটেলের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ যৌন ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে। অভিযানে আটক ১৯ জনের মধ্যে ১৩ জন তরুণ এবং ছয়জন তরুণী রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৭ জনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি অন্য দুইজনকে গাঁজা সেবন ও বহনের দায়ে ছয় মাস করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মো. আমিনুল ইসলাম/এএম/এমএস