ভোগান্তিতে বিশ গ্রামের মানুষ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি খাগড়াছড়ি
প্রকাশিত: ০৯:৪৫ পিএম, ২৩ জুন ২০১৮

সাম্প্রতিক পাহাড়ি ঢলে পার্বত্য খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলা সদরের খুব কাছাকাছি ১০ নম্বর এলাকায় ভেঙে পড়েছে ধলিয়া খালের উপর নির্মিত সেতুটি। প্রায় ২৫০ ফুট দৈর্ঘ্য সেতুটির মাঝামাঝি অংশের মূল পিলারের গোড়া থেকে মাটি সরে গেলে পানির প্রবল স্রোতে সেতুটি নদীতে ভেঙে পড়ে। এতে করে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সেতুর অপরপ্রান্তে বসবাসকারী বিশ গ্রামের মানুষ। ফলে একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ এসব গ্রামের মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে।

জানা গেছে, স্থানীয়দের সড়ক যোগাযোগের সুবিধার্থে ২০০১ সালে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ ধলিয়া খালের উপর এ সেতুটি নির্মাণ করে। সেতুটি নির্মাণের পর শিক্ষা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হলেও সেটি ভেঙে পড়ায় বিশ গ্রামের মানুষের নতুন করে দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, সেতু ভেঙে পড়ায় অনেকেই হাটু পানি পার হয়ে বাজারে যাচ্ছেন। একইভাবে শিক্ষার্থীদেরও পানি ভেঙে স্কুল-কলেজে যেতে হচ্ছে। আবার কেউ কেউ ভেলা দিয়ে নিজের সন্তানদের নদী পার করছেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য অমৃত কুমার ত্রিপুরা বলেন, এ সেতু ধরেই তপ্তমাস্টার পাড়া, কুলপাড়া, দলদলী পাড়া, কাঁঠালতলী, রবিচন্দ্র পাড়া, হেডম্যান পাড়া, কার্বারি পাড়া, হিলছড়ি, রামানন্দ পাড়া, দুলছড়ি পাড়াসহ অন্তত বিশ গ্রামের মানুষের বসবাস।

তিনি বলেন, সেতুটি ভেঙে যাওয়ায় পাহাড়ে উৎপাদিত কৃষি পণ্য বাজারজাত করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বাড়িতেই নষ্ট হচ্ছে আম, কাঁঠাল ও আনারসসহ মৌসুমী ফল-ফলাদি। এখানকার মানুষের কষ্টের শেষ নেই।

Bridge-NEWS-Pic

তপ্তমাস্টার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নাদির আহম্মেদ জানান, সেতুটি খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যে মেরামত বা পুনঃনির্মাণ করা না হলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে এ জনপদের মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। শিক্ষা ব্যবস্থাও মারাত্মকভাবে ব্যহত হবে।

মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা বলেন, সেতুটি ভেঙে পড়ার কারণে ইতোমধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সেতুটি দ্রুত পুনঃনির্মাণ করা না হলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে এখানকার জনগণকে বাড়তি ভোগান্তিতে পড়তে হবে।

এদিকে সম্প্রতি ভেঙে পড়া সেতুটি পরিদর্শন করেছেন ভারত প্রত্যাগত শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। এসময় তিনি তাড়াতাড়ি জনগণের ভোগান্তি নিরসনে সেতুটি পুনঃনির্মাণের আশ্বাস প্রদান করেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভীষণ কান্তি দাশ বলেন, সেতুটি ভেঙে পড়ার কারণে মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়নের বিশ গ্রামের মানুষজনের চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। জনগুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় দ্রুত সেতুটি পুনঃনির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চিঠি দেয়া হয়েছে।

মুজিবুর রহমান ভুইয়া/এমএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :