প্রণোদনা সত্ত্বেও চাঁদপুরে কমছে আউশ চাষ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চাঁদপুর
প্রকাশিত: ১০:১৯ এএম, ১৩ জুলাই ২০১৮

চাঁদপুরে আউশ ধান চাষ বছর বছর কমে যাচ্ছে। সরকার আউশ চাষ বৃদ্ধির জন্য কৃষকদের মাঝে কৃষি প্রণোদনা দিয়ে এলেও আউশ চাষের পরিমাণ বাড়ছে না বরং প্রতি বছরই কমছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর থেকে জানা যায়, ৭-৮ বছর আগে চাঁদপুর জেলায় ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে আউশ ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হতো। যা কমিয়ে এবার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ১০ হাজার ২৬০ হেক্টর জমিতে। কিন্তু আবাদ হয়েছে ৯ হাজার ১৩৫  হেক্টর জমিতে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ হাজার ১২৫ হেক্টর কম। 

এর কারণ হিসেবে কৃষকরা বলছেন, অধিক বৃষ্টিপাতের কারণে আউশ ধানের চারা রোপণের পর তা তলিয়ে নষ্ট হয়ে যায়। বছর বছর কৃষকরা এভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এবং জলাবদ্ধতার কারণে তারা এ ধান চাষ থেকে বিরত থাকেন। 

চাঁদপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানায়, এবার চাঁদপুর সদরে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৯৮ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ২১৫ হেক্টর জমিতে। মতলব উত্তরে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩ হাজার ৮৪৫ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ৩ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে। শাহরাস্তিতে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯৮৮ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ৯৯৫ হেক্টর জমিতে। কচুয়ায় লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪ হাজার ১১০ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ৩ হাজার ৭৯০ হেক্টর জমিতে। ফরিদগঞ্জে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩০৫ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ৩১০ হেক্টর জমিতে। হাইমচরে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬০৫ হেক্টর জমি, আবাদ হয়েছে ৬৭৫ হেক্টর জমিতে। এছাড়া হাজীগঞ্জ ও মতলব দক্ষিণে আউশ ধান চাষ করা হয় না। 

ইকরাম চৌধুরী/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :