গৃহবধূ হত্যা ও গুমের ঘটনায় স্বামী-শাশুড়ি গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নেত্রকোনা
প্রকাশিত: ০৪:৫২ পিএম, ০৫ আগস্ট ২০১৮
ছবি-ফাইল

নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার রাজপাড়া এলাকায় স্ত্রীকে হত্যা ও মরদেহ গুমের ঘটনায় প্রায় চারমাস পর স্বামী রহমত মিয়া (৩২) ও শাশুড়ি আয়শা খাতুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারের পর তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ি পুলিশ তার বাসার পেছন থেকে শনিবার গৃহবধূর বস্তাবন্দী মরদেহ উদ্ধার করেছে। এর আগে শুক্রবার রাতে গাজীপুরের কোনাবাড়ী থেকে রহমত মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

পূর্বধলা থানার ওসি মো. বিল্লাল উদ্দিন জানান, প্রায় ৬-৭ বছর আগে পূর্বধলা উপজেলা সদরের রাজপাড়া এলাকার নূর হোসেনের ছেলে রহমত মিয়ার সঙ্গে একই উপজেলার মেঘশিমুল গ্রামের আব্দুর রহিম ও হালিমা আক্তারের মেয়ে মৃত কল্পনা আক্তারের (৩০) বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই কল্পনার সঙ্গে দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার সালিশ দরবার ও হয়। এক পর্যায়ে কল্পনা তার বাবার বাড়ি মেঘশিমুল গ্রামে মায়ের কাছে চলে যান। প্রায় ৪ মাস আগে রহমত মিমাংসার মাধ্যমে কল্পনাকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। এর তিনদিন পর গত ৯ এপ্রিল থেকেই কল্পনাকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না। ঘটনার সময় রহমত জানায়, ঝগড়া করে তার স্ত্রী ঢাকায় চলে গেছে। এরপর সে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কথা বললে স্থানীয়দের সন্দেহ দেখা দেয়।

ওসি বিল্লাল আরও জানান, পরে কল্পনার মা হালিমা আক্তার নিখোঁজের এক সপ্তাহ পর পূর্বধলা থানায় একটি জিডি করেন। এর প্রেক্ষিতে শুক্রবার রাতে মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে রহমত মিয়াকে গাজীপুরের কোনাবাড়ী থেকে আটক করে পুলিশ। আটকের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের রহমত মিয়া জানায়, সে স্ত্রীকে হত্যা করে মরদেহ তার ঘরের পেছনে মাটির নিচে বস্তায় ভরে চাপা দিয়ে রেখেছে। এ স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শনিবার ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

কামাল হোসাইন/আরএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :