শোলাকিয়ার চেয়ে বড় ঈদ জামাত আয়োজনের ঘোষণা শামীমের

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ১২ আগস্ট ২০১৮

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ ঈদগাহে মুসল্লিদের জায়গা হয় না। মুসল্লি বেশি হওয়ায় পাশের সড়কে নামাজ পড়তে হয়। এতে মানুষের ভোগান্তি বাড়ে। আমরা চাই, একটি বৃহৎ ঈদ জামাতের ব্যবস্থা করা। যেখানে মানুষকে রাস্তায় নামাজ পড়তে হবে না, বৃষ্টিতে ভিজতে হবে না, রোদে পুড়তে হবে না।

তিনি বলেন, নামাজের জামাত যত বড় হয় মানুষের দোয়া তত কবুল হয়। মানুষ যদি কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়াতে গিয়ে ঈদের নামাজ পড়তে পারে তাহলে নারায়ণগঞ্জেও এক সময় বিভিন্ন জেলা থেকে লোকজন নামাজ পড়তে আসবেন। কারণ আমাদের এখানে শোলাকিয়ার চেয়ে বড় জামাত আয়োজন করা সম্ভব। আমরা তার আয়োজন করব।

রোববার দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের দ্বিতীয় তলার শীতলক্ষ্যা কমিউনিটি সেন্টারে জেলার বিভিন্ন মসজিদ- মাদরাসার ইমাম, খতিব ও অধ্যক্ষদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন শামীম ওসমান।

Narayanganj

সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্য করে শামীম ওসমান বলেন, কেন্দ্রীয় ঈদগাহের পাশে যত দোকানপাট রয়েছে তা উচ্ছেদ করে দিন। ঈদগাহের কাছে ময়লা আবর্জনার স্তূপ করে রাখা আছে সেগুলো সরিয়ে দিন। ঈদগাহ একটি পবিত্র স্থান। পবিত্র স্থানের পবিত্রতা রক্ষা করা আমাদের কাজ।

তিনি বলেন, লিংক রোডে একটি ড্রেন নির্মাণে ৬ মাস কালক্ষেপণের কারণে এই সড়কের নির্মাণকাজ করতে পারছি না। অথচ এই সড়কের জন্য ১৮ কোটি টাকা বরাদ্দ এনে রেখেছি। এই ড্রেনের জন্য চাষাড়ার মানুষকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. রাব্বী মিয়া, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ রশিদ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী ও শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু প্রমুখ।

ঈমামদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মাওলানা আব্দুল কাদির, মাওলানা আব্দুর রহমান, মাওলানা আব্দুস সালাম, মাওলানা আলী আহমদ, মাওলানা আতাউল হক সরকার, মাওলানা মহিউদ্দিন, মুফতি হারুনুর রশিদ ও মুফতি বশিরউল্লাহ প্রমুখ।

মো. শাহাদাত হোসেন/এএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :