চামড়া ঠেকাতে ১৭ স্পটে বিজিবি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০২:১১ পিএম, ২১ আগস্ট ২০১৮
ফাইল ছবি

রাত পোহালে পবিত্র ঈদুল আযহা। কোরবানি উপলক্ষে ফেনী শহরতলীর পাঁচগাছিয়া বাজারে একশ থেকে দেড়শ কোটি টাকার চামড়ার কারবার হয়। এটি বৃহত্তর নোয়াখালীর সর্ববৃৃহৎ চামড়া বাজার হিসেবে পরিচিত।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সদর উপজেলার ধর্মপুর, পরশুরাম, ছাগলনাইয়া ও ফুলগাজী সীমান্তে চামড়া পাচার ঠেকাতে ৪ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। ইতোমধ্যে জেলার সীমান্তবর্তী ১০৩ কিলোমিটার এলাকায় বিশেষ টহল জোরদার করা হয়েছে ও বিভিন্নস্থানে স্পট নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

বছরজুড়ে চামড়া কেনাবেচা হয় পাঁচগাছিয়া বাজারে। শুধু কোরবানি ঈদে শত কোটি টাকার চামড়া বেচাকেনা হয় এ বাজারে। বিভিন্ন ট্যানারির মালিকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে জেলার বিভিন্নস্থান থেকে চামড়া সংগ্রহ করে।

পাঁচগাছিয়া বাজারের চামড়া বিক্রেতারা জানান, খুচরা বিক্রেতাদের মাধ্যমে চামড়া সংগ্রহ করা হয়। কোরবানির ঈদে ফেনী ছাড়াও আশপাশের নোয়াখালী, লক্ষীপুর, কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থেকে চামড়া আসে এ বাজারে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক খুচরা বিক্রেতা জানান, অসাধু চামড়া ব্যবসায়ীরা অধিক মুনাফার আশায় সীমান্ত দিয়ে ভারতে চামড়া পাচার করে। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে চামড়া পাচার করতে না পারলে তারা সিন্ডিকেট করে খুচরা ব্যবসায়ীদের ঠকিয়ে থাকে। তবে এ ব্যাপারে আগেভাগে সতর্ক ফেনীস্থ বিজিবি।

জানতে চাইলে ফেনীস্থ ৪ বিজিবির অধিনায়ক লে: কর্নেল মো. সহিদুর রহমান বলেন, সীমান্তবর্তী জেলার ১৭টি বিওপিতে বিশেষ টহলের মাধ্যমে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। প্রতিটি বিওপিতে ৬ জন করে দিবারাত্রী মোতায়েন থাকবে। যাতে কোনোভাবে ভারতে চামড়া পাচার হতে না পারে সেজন্য বিজিবি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

রাশেদুল হাসান/এমএএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :