সাংবাদিককে মারধরে জড়িতদের গ্রেফতারে আলটিমেটাম

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লালমনিরহাট
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ২৭ মার্চ ২০১৯

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ছবি তোলার সময় সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ৭২ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন স্থানীয় সাংবাদিক নেতারা। বুধবার দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদে ঘণ্টাব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন থেকে এ আলটিমেটাম দেয়া হয়।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা বলেন, মহান স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে কতিপয় লোক লাঠি ও লোহার রড নিয়ে অংশ নেয়। স্বাধীনতার র‌্যালিতে পতাকা না নিয়ে লাঠিসোটা নিয়ে আসায় ছবি তুলতে যান দৈনিক মানবকণ্ঠের লালমনিরহাট প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান সাজু ও আমাদের সময়ের নুরনবী সরকার। এ সময় সাংবাদিকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ক্যামেরা কেড়ে নিয়ে ভাঙচুর করা হয়।

ওই দুই সাংবাদিককে উদ্ধার করতে গিয়ে আরও তিনজন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে সাংবাদিক আসাদুজ্জামান সাজুকে রংপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় সাংবাদিক আসাদুজ্জামান সাজু টংভাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সেলিম হোসেনসহ নয়জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। কিন্তু ঘটনায় জড়িতদের এখনো গ্রেফতার করা হয়নি।

Lalmonirhat-Journalist2

এদিকে সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতার করে শাস্তির দাবিতে কয়েকটি সাংবাদিক সংগঠন বুধবার হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ গেটে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করে। আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা না হলে শনিবার লালমনিরহাট শহরে প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা দেন সাংবাদিক নেতারা।

হাতীবান্ধা প্রেস ক্লাবের আহ্বায়ক স্বপন কুমার দের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন আহত সাংবাদিকের মেয়ে উম্মে সুরাইয়া, প্রফেশনাল জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি এস দিলীপ রায়, সম্পাদক মাজেদ মাসুদ, প্রেস ফোরের সদস্য সচিব মিজানুর রহমান দুলাল, মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম লালমনিরহাট শাখার সভাপতি খোরশেদ আলম সাগর ও সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়াজ আহমেদ শিপন।

প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন শেষে সাংবাদিকরা হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সামিউল আমিন ও থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুকের সঙ্গে বৈঠক করে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

হাতীবান্ধা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, মামলার এক আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রবিউল হাসান/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :