আলীর পাশে দাঁড়িয়েছেন সরকারি কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাই

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৪:০৬ পিএম, ২৮ মে ২০১৯

রংপুরের ছেলে মিস্টার আলী। বাবা হাবিবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। অভাবের সংসারে অনেকটা যুদ্ধ করে চলতি বছর রংপুর সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ- ৪.৮৩ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন। এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের রঙিন স্বপ্ন তার চোখে।

কিন্তু টাকার অভাবে আলীর সেই স্বপ্নের রঙ যখন ফিকে হবার উপক্রম ঠিক তখনই তার পাশে দাঁড়িয়েছেন সরকারি কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাই। নিজেকে সব সময় মানবিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত রাখেন সিনিয়র সহকারী সচিব মনদীপ ঘরাই। বর্তমানে তিনি স্থানীয় সরকার বিভাগের এলজিএসপি-৩ প্রকল্পে কর্মরত আছেন সরকারের এ জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার ঢাকার মোহাম্মদপুরের লালমাটিয়া লাইসিয়াম কনভেনশন সেন্টারে শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভিন্ন এক মিলন মেলার আয়োজন করে 'ঘুড্ডি ফাউন্ডেশন' নামে একটি সামাজিক সংগঠন। এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া দুই শতাধিক মেধাবী শিক্ষার্থী তাদের স্বপ্ন নিয়ে সেখানে অংশ নেন। তাদের সবাই অস্বচ্ছল পরিবারের। সবার স্বপ্ন একটাই, সেটি হলো ভালো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ। তাদের স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব নিয়েছে ঘুড্ডি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগ 'বর্ণ' এডুকেশন কেয়ার।

gorai-2

'বর্ণ' মেধাবী অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে হোস্টেলে থাকার ব্যবস্থা ও ও ভর্তি পরীক্ষায় সহায়তা দিয়ে থাকে।
মেধাবী এসব শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় হাজির হয়েছিলেন মনদীপ ঘরাই। তিনি 'বর্ণ' এর এই মহৎ উদ্যোগে নিজেকে সম্পৃক্ত রাখতে দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থী আলীর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব নেন।

'বর্ণ' এর শিক্ষা কার্যক্রম চলা পর্যন্ত আগামী ছয় মাস নিজের বেতনের একদিনের সমপরিমাণ অর্থ আলীর স্বপ্ন পূরণের জন্য দেয়ার ঘোষণা দেন।

আলীকে এ মাসের অর্থ হাতে তুলে দিয়ে মনদীপ ঘরাই বলেন, সব ভালো কাজে প্রেরণা দিতে সাধ্যমতো চেষ্টা করি। আলীর স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব গ্রহণের মাধ্যমে মেধাবীদের একটা বার্তা দিতে চেয়েছি যে, ওদের পাশে আমরা সবসময় আছি। আমি চাই এই আলীই একদিন সফল হয়ে অন্য কারও পাশে দাঁড়াবে।

সরকারি কর্মকর্তা হয়েও মনদীপ ঘরাই মানবিক নানা কর্মকাণ্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। তার লেখা বইয়ের লভ্যাংশের পুরো টাকা উৎসর্গ করেন পথশিশুদের শিক্ষা সহায়তায়। এছাড়াও নববর্ষ ভাতার পুরো টাকা তিনি বিলিয়ে দেন পথশিশুদের নববর্ষ উদযাপনে।

আজিজুল সঞ্চয়/এমএএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :