ঝাড়ফুঁক দেয়া গুড় খেয়ে ইমামের মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৫:৫৩ পিএম, ২৪ আগস্ট ২০১৯

পাবনার সুজানগরে আল এহসান একাডেমি নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক এবং পৌরসভার নিউগির বনগ্রাম মসজিদের ইমাম হাফেজ মো.আব্দুর রাজ্জাকের (৩২) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ভোরে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাফেজ আব্দুর রাজ্জাক উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের চরগোবিন্দপুর গ্রামের মৃত ছগির প্রামাণিকের ছেলে।

সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. রকি জানান, শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ডায়রিয়া ও বমি হওয়ায় আব্দুর রাজ্জাক হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। পরে শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ঘুমন্ত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আব্দুর রাজ্জাকের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে দাবি করে সুজানগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন তার ভাই আব্দুল মমিন প্রামাণিক।

লিখিত অভিযোগে আব্দুল মমিন জানান, আব্দুর রাজ্জাক দুই বছর আগে বিয়ে করে স্ত্রী সাথী খাতুনকে নিয়ে পৌরসভার নিউগির বনগ্রাম গ্রামের মোহাম্মদ আলী মদনার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তিনি স্থানীয় আল এহসান একাডেমিতে শিক্ষকতা করার পাশাপাশি মসজিদে ইমাম হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। এরই মধ্যে ওই বাসার মালিক উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোহাম্মদ আলী মদনার ছেলে মামুনের বাড়ি থেকে গত ১৯ আগস্ট তিন লাখ টাকা চুরি হয়। এ চুরির ঘটনায় আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী সাথী খাতুন জড়িত বলে অভিযোগ করেন মামুন। এ নিয়ে আব্দুর রাজ্জাক ও তার স্ত্রীর ওপর মানসিক চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন তারা।

এর মধ্যে শুক্রবার দুপুরে মামুন একজন কবিরাজ নিয়ে আসে। ওই কবিরাজ গুড় (মিঠাই) ঝাড়ফুঁক দিয়ে আব্দুর রাজ্জাককে খাওয়ায়। এর পরই মসজিদে আসর ও মাগরিব নামাজ আদায় করার পর বমি ও পাতলা পায়খানা হলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন আব্দুর রাজ্জাক। এ অবস্থায় তাকে শুক্রবার রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে শনিবার ভোরে ঘুমন্ত অবস্থায় আব্দুর রাজ্জাকের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে মামুন জানান, তার টাকা হারিয়ে যাওয়ার পর একসঙ্গে কবিরাজের ঝাড়ফুঁক দেয়া গুড় ১৬ জন খেয়েছে, তাদের কোনো সমস্যা হয়নি।

সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল আলম জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই জানা যাবে স্বাভাবিক মৃত্যু না অন্য কোনো কারণে আব্দুর রাজ্জাকের মৃত্যু হয়েছে।

একে জামান/আরএআর/এমএস