পুলিশের সহযোগিতায় নতুন ঘর পেলেন বীরাঙ্গনা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পটুয়াখালী
প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
নতুন ঘরের সামনে ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ও বীরাঙ্গনা ফুল বরু

পটুয়াখালী উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সহযোগিতায় টিনের নতুন ঘর পেয়েছেন বীরাঙ্গনা ফুল বরু। শনিবার ইটবাড়িয়ায় তাকে ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান।

জানাগেছে, একদিন সদর থানায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের অভিযোগ দিতে আসেন ইটবাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা আজাহার মোল্লার বৃদ্ধ স্ত্রী বীরাঙ্গনা ফুল বরু। এরপর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান ফুলবরুর গ্রামের বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে জরাজীর্ণ ঘর দেখতে পেয়ে তাকে একটি নতুন ঘর বানিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেন তিনি। এরপর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা লতিফা জান্নাতির কাছ থেকে ২ বান্ডিল টিন ও ৮ হাজার টাকা সহযোগিতা নিয়ে নিজের অর্থ দিয়ে ঘর বানানোর উদ্যোগ নেন ওসি মোস্তাফিজুর রহমান।
ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ফুল বরু একজন ত্যাগী নারী। তিনি দেশের জন্য নিজের সর্বস্ব ত্যাগ করেছেন। তার স্বামী-সন্তান নেই। বহুকষ্টে জীবন কাটছিল। তাই ওনাকে একটি ঘর বানিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। সে অনুযায়ী সাধ্যমত ঘর বানিয়ে আজ তাকে হস্তান্তর করলাম।’

অশ্রুশিক্ত নয়নে ফুলবরু বলেন, আমার খুব কষ্ট হচ্ছিল। যারা ঘর বানিয়ে দিয়েছেন আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ২মে পাক বাহিনীর গোলাগুলির মুখে পালিয়ে যাবার সময় ধরা পড়েন ফুলবরু। এরপর ১০ দিন পটুয়াখালী সার্কিট হাউজে আটকে রেখে তার ওপর নিপীড়ন চালায় পাক সেনারা। এক পর্যায়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে কচাবুনিয়া নদীর তীরে তাকে ফেলে রেখে যায় তারা। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করেন। পরবর্তীতে ফুলবরুর সংসার হয়েছে, কিন্তু তিনি মা হতে পারেননি।

মহিব্বুল্লাহ্ চৌধুরী/এমএমজেড/এমকেএইচ