বঙ্গোপসাগরে ডুবে যাওয়া ১৪ নাবিককে জীবিত উদ্ধার

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কুয়াকাটা (পটুয়াখালী)
প্রকাশিত: ০৯:১০ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার পায়রা বন্দর সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ডুবে যাওয়া এমভি গলফ আরগো জাহাজের ১৪ নাবিককে উদ্ধার করেছে নৌবাহিনীর সদস্যরা। শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর টহলরত সাংগু নামের একটি জাহাজ তাদের উদ্ধার করে।

উদ্ধারকৃত নাবিকরা সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। তারা বর্তমানে গভীর সমুদ্রে নৌবাহিনীর জাহাজ সাঙ্গুতে অবস্থান করছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা ও খাবার প্রদান করা হয়েছে। তবে ডুবে জাওয়া জাহাজটি এখনও উদ্ধার করতে পারেনি নৌবাহিনীর সদস্যরা। উদ্ধার হওয়া নাবিকদের শনিবার তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানা গেছে।

Kuakata-News-pic-(02

নৌবাহিনীর সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে কন্টেইনারবাহী জাহাজ এমভি আরগো ১৫২টি কন্টেইনার নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে ভারতে যাবার পথে পায়রা ফেয়ারওয়ে বয়ার কাছে পৌঁছলে ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। এসময় বঙ্গোপসাগরের উত্তাল ঢেউয়ের তাণ্ডবে জাহাজটি ডুবে যায়। খবর পেয়ে গভীর সমুদ্রে টহলরত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জাহাজ সাঙ্গু তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে ১৪ জন নাবিককে সমুদ্রে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করে।

উদ্ধারকৃত নাবিকরা হলেন, জাহাজের ক্যাপ্টেন কাজী আব্দুল্লাহ আল মুহিত (৩৫), চিফ ইঞ্জিনিয়ার হাসান রেজা খালিদ (৩২), চিফ অফিসার কাজী মাহমুব আলম (২৮), সেকেন্ড ইঞ্জিনিয়ার নূর আলম হিমেল (২৬), থার্ড মাস্টার মোজাম্মেল হোসেন (২৪), বোসনমেট রফিক উল্লাহ (৫৯), এ্যাবল সীম্যান জুবায়ের হোসেন (২৪), অডিনারী সীম্যান সুজন মুখারজি (২০), অডিনারী সীম্যান মো. সাহাবুদ্দিনসহ (২১), শাহদাত হোসেন (৩৭), জমিরুল ইসলাম (৩০), শহিদ মিয়া (২৩), মো. রাজু (২৫) এবং আব্দুর রশিদ (৫০)।

Kuakata-News-pic-(02

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সহকারী তথ্য অফিসার এস এম শামীম আলম জানান, উদ্ধারকৃত নাবিকরা বর্তমানে সাঙ্গুতে অবস্থান করছে। তারা সবাই সুস্থ রয়েছে।

কাজী সাঈদ/এমএএস/এমকেএইচ