চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হচ্ছে শরিফাকে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০৯:২৬ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০১৯

টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে না পারা আট বছর বয়সী শিশু শরিফা খাতুনের অবশেষে চিকিৎসা হচ্ছে। সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল শিশু শরিফার চিকিৎসায় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। মাথায় শিং আকৃতির টিউমারে আক্রান্ত শরিফা।

গত ৩ অক্টোবর ‘টাকার অভাবে শরিফাকে ঢাকায় আনতে পারছেন না বাবা’ শিরোনামে জাগো নিউজে সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর জেলা প্রশাসক শরিফার পরিবারের সদস্যদের তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে বলেন। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে রোববার বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে শিশু শরিফাকে নিয়ে হাজির হন তার মা-বাবা। এ সময় জেলা প্রশাসক এস. এম মোস্তফা কামাল শিশু শরিফার শারীরিক অবস্থার সার্বিক খোঁজখবর নেন ও শরিফাকে সুস্থ করতে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

খোঁজখবর নেয়ার সময় শরিফার বাবা আশরাফুল ইসলাম জেলা প্রশাসককে জানান, সংবাদ প্রকাশের পর এক্সিম ব্যাংক কর্তৃপক্ষ শরিফার চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করবে বলে জানিয়েছে। সে অনুযায়ী তারা যাতায়াত খরচও পাঠিয়েছেন।

বিষয়টি জেনে জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, পরবর্তী যে কোনো সহযোগিতায় প্রয়োজন হলে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। শরিফার চিকিৎসার জন্য সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।

এ সময় সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক মোমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি ও জাগো নিউজের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি আকরামুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

শরিফা খাতুন সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কঁড়াগাছি ইউনিয়নের হরিণা মাঝেরপাড়া গ্রামের আশরাফুল ইসলামের মেয়ে। জন্ম থেকেই সে প্রতিবন্ধী।

শরিফার বাবা আশরাফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমি ভ্যানচালক। যেটুকু রোজগার করি সেটা দিয়েই এতদিন শরিফাকে ডাক্তার দেখিয়েছি। হাল ছেড়ে দিয়েছিলাম। অবশেষে মেয়ের চিকিৎসার একটা উপায় হলো।’

বিভিন্নভাবে যারা সহযোগিতা করছেন তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, রাতেই (রোববার) স্ত্রী ফাহিমা বেগমকে সঙ্গে নিয়ে শরিফার চিকিৎসার জন্য ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেবো। এক্সিম ব্যাংক কর্তৃপক্ষ কোথায় শরিফার চিকিৎসা করাবে সেটি এখনো আমি জানি না।

আকরামুল ইসলাম/আরএআর/জেআইএম