হাসপাতালের ১৭ কোটি টাকা লোপাট, স্টোরকিপার কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০৪:৫৫ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনার নামে ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা লোপাটের ঘটনায় করা মামলায় স্টোরকিপার একেএম ফজলুল হককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক শেখ মফিজুর রহমান।

দুদকের আইনজীবী আসাদুজ্জামান দিলু বলেন, হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনার নামে ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা লোপাটের ঘটনায় করা দুদকের মামলায় স্টোরকিপার ফজলুল হকের বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। মঙ্গলবার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে জামিন চাইলে তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

এর আগে হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনার নামে ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা লোপাটের ঘটনায় মামলা করে দুদক। দীর্ঘ তদন্ত শেষে দুদকের প্রধান কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক জালাল উদ্দিন বাদী হয়ে সিভিল সার্জন ডা. তৌহিদুর রহমান, স্টোর কিপার একেএম ফজলুল হক ও হিসাবরক্ষক আনোয়ার হোসেনসহ নয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার অপর আসামিরা হলেন- রাজধানীর তোপখানা রোডের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিকাল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহের উদ্দিন সরকার, তার ছেলে মো. আহসান হাবিব, জাহের উদ্দিনের বাবা মার্কেন্টাইল ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের কর্ণধার হাজি আবদুস সাত্তার সরকার এবং তার ভগ্নিপতি ইউনিভার্সেল ট্রেড কর্পোরেশনের কর্ণধার মো. আসাদুর রহমান, জাহের উদ্দিন সরকারের নিয়োগকৃত প্রতিনিধি কাজী আবু বকর সিদ্দিক ও মহাখালী নিমিউ অ্যান্ড টিসির সহকারী প্রকৌশলী এএইচএম আব্দুল কুদ্দুস।

আকরামুল ইসলাম/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]