ঝিনাইদহ হাসপাতালে পানির সংকট

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঝিনাইদহ
প্রকাশিত: ০৪:১৬ পিএম, ২৯ অক্টোবর ২০১৯

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট দেখা দিয়েছে। হাসপাতালের নলকূপের পানি দুর্গন্ধ ও নলকূপের চারপাশে ময়লার স্তূপ থাকায় বাইরে থেকে পানি এনে রোগী ও স্বজনদের পান করতে হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, হাসপাতাল চত্বরে একটি নলকূপ ও পানির ট্যাংক রয়েছে। কিন্তু নলকূপের পানি দুর্গন্ধ। সেই সঙ্গে নলকূপের চারপাশে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০০৬ সালে সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গণপূর্ত বিভাগের মাধ্যমে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে একটি নলকূপ বসায়। ওই নলকূপের সঙ্গে পানির ট্যাংক ও মোটর স্থাপন করা হয়। কিন্তু গত দুই বছর ধরে পানির ট্যাংক নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। নলকূপের সঙ্গে স্থাপন করা মোটর অকেজো। কলের পানিতে প্রচুর দুর্গন্ধ।

জানা যায়, ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বহির্বিভাগে প্রতিদিন অন্তত ১২০০ রোগী আসেন। গড়ে প্রতিদিন শতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। রোগীদের সঙ্গে থাকেন স্বজনরা। অথচ হাসপাতালে খাবার পানির কোনো ব্যবস্থা নেই।

jinaidah2

চিকিৎসা নিতে আসা আলেয়া বেগম বলেন, হাসপাতালে খাবার পানির কোনো ব্যবস্থা নেই। বাইরের হোটেল কিংবা খাবার দোকান থেকে পানি আনতে হয়। সোমবার রাত দেড়টার দিকে পানির দরকার হলে বাইরে গিয়ে খেয়ে আসতে হয়।

হাসপাতালে ভর্তি এক রোগীর স্বজন শমসের মিয়া বলেন, হাসপাতালের নলকূপের পানিতে দুর্গন্ধ। নলকূপের চারপাশে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ। বিষপান করা রোগীদের হাসপাতালে আনা হলে নলকূপের পাশে ওয়াশ করা হয়। হাসপাতালের জিনিসপত্র ওই নলকূপের পানিতে ধোয়া হয়। অনেকেই নলকূপের পাশে প্রস্রাবও করেন।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আয়ুব আলী বলেন, হাসপাতালের একমাত্র নলকূপের পাশে থাকা ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কারের জন্য পৌরসভাকে জানানো হবে। তারা নিয়মিত পরিষ্কারের ব্যবস্থা করবে। পাশাপাশি গণপূর্ত বিভাগকে জানিয়েছি পানির ট্যাংক মেরামতের জন্য। এসব কাজ সম্পন্ন হলে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ/এএম/এমএস