সাভারে ২০ লাখ টাকার নকল কসমেটিকস ধ্বংস, জরিমানা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সাভার (ঢাকা)
প্রকাশিত: ০২:২০ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৯

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই প্রসাধনী (কসমেটিকস) সামগ্রী তৈরি ও বাজারজাতকরণের অভিযোগে সাভারে ইয়াফি বিউটি কনসেপ্ট কেয়ার লি. নামে একটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। এ সময় সেখান থেকে অনুমোদনহীন ২০ লাখ টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রসাধনী জব্দ করা হয়। পরে এসব প্রসাধনী ধ্বংসসহ
প্রতিষ্ঠনটির মালিক ও এক কর্মকর্তাকে মোট তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১নভেম্বর) সকালে র‌্যাব-৪ (সিপিসি-২) এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর শিবলী মোস্তফা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকেল থেকে বুধবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যা পর্যন্ত সাভারের দেওগাঁও এলাকার ইয়াফি বিউটি কনসেপ্ট কেয়ার লিমিটেড নামে কারখানায় অভিযান পরিচালনা করেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আনিসুর রহমান। এ সময় বিএসটিআই ও র‌্যাব-৪ এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

cosmatic

অর্থদণ্ড প্রাপ্তরা হলেন- ইয়াফি বিউটি কনসেপ্ট কেয়ার লিমিটেডের মালিক নাজমুল হক (৪০) এবং ম্যানেজার কুতুব উজ্জামান (৩৭)। নাজমুল হকের বাড়ি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার মহানেগ গ্রামে, বাবার নাম মমরেজ মোল্লা। অপরদিকে কুতুব উজ্জামানের বাড়ি কুষ্টিয়ার খোকশা উপজেলার নিশ্চিন্ত বাড়িয়া গ্রামে, বাবার নাম আসাদুজ্জামান।

মেজর শিবলী মোস্তফা জানান, দীর্ঘদিন ধরে সাভারের দেওগাঁও এলাকায় বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই অবৈধভাবে ফেসিয়াল, হেয়ার জেল, আফটার সেভ ও লোশনসহ প্রায় ১৭ প্রকারের নকল প্রসাধনী তৈরি করে আসছিল ইয়াফি বিউটি কনসেপ্ট কেয়ার লিমিটেড নামের প্রতিষ্ঠানটি। পরে গত মঙ্গলবার বিকেল থেকে বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে কারখানাটির তৈরি বিপুল পরিমাণ প্রসাধনী সামগ্রীর মানযাচাই করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ২০ লাখ টাকা মূল্যের ১৭ প্রকারের প্রসাধনী সামগ্রী নকল চিহ্নিত করে তা জব্দের পর ধ্বংস করা হয়।

তিনি আরও জানান, এ সময় নকল পণ্য তৈরি ও তা বাজারজাতকরণের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির মালিক নাজমুল হককে ২ লাখ ও ম্যানেজার কুতুব উজ্জামানকে ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠান ও জড়িতদের বিরুদ্ধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৪৩ ও ৫৩ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আল-মামুন/এমএমজেড/জেআইএম