‘বাংলাদেশ সত্যিকারেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০

বাংলাদেশকে সত্যিকারেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ উল্লেখ করে ভারতের সহকারী হাইকমিশনার (রাজশাহী) সঞ্জিব কুমার ভাটি বলেছেন, আমি এদেশে কাজ করতে এসে বাস্তবে অনুভব করেছি, এখানে সব ধর্মের মানুষ মিলে-মিশে তাদের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান উৎসবমুখর পরিবেশে পালন করেন। সবার মধ্যে আত্মীয়তার বন্ধন বিরাজমান।

বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের ষষ্ঠ প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে শুক্রবার পাবনায় এক স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সহকারী হাইকমিশনার পাবনা প্রেস ক্লাবসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের আইটিখাতে নানাভাবে সহযোগিতা দেয়ারও আশ্বাস দেন।

মহানায়িকার প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে পাবনা জেলা প্রশাসন এবং সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে পৃথক পৃথক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। সকালে পাবনা প্রেস ক্লাবের ভিআইপি অডিটরিয়ামে সুচিত্রা সেন স্মরণে আলোচনা সভা এবং তার সিনেমার গান পরিবেশন করা হয়। সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি এম সাইদুল হক চুন্নুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারতের সহকারী হাইকমিশনার সঞ্জিব কুমার ভাটি।

Pabna-1

এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) গৌতম কুমার বিশ্বাস, পাবনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি প্রফেসর শিবজিত নাগ, বিবিসি ও ভয়েস অব আমেরিকার আন্তর্জাতিক উপস্থাপক শামিম চৌধুরী, সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সহসভাপতি রাম দুলাল ভৌমিক, পাবনা প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি ও সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সহসভাপতি আখতারুজ্জামান আখতার, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আঁখিনুর ইসলাম রেমন, পাবনা চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র সহসভাপতি আলী মর্তজা বিশ্বাস সনি, সুচিত্রা সেন সংরক্ষণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ড. নরেশ মধু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমেদ সিদ্দিকী, রাজিউর রহমান রুমি প্রমুখ।

এর আগে সুচিত্রা সেনের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার ও সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

Pabna-1

এদিকে সকালে পাবনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহানায়িকার পৈতৃক বাড়িতে নির্মিত তার আবক্ষ ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামিমা আখতার। পরে সুচিত্রা সেনের শৈশবের স্মৃতি বিজরিত বিদ্যাপীঠ মহাকালি পাঠশালা (বর্তমানে পাবনা টাউন গালর্স হাইস্কুল) পর্যন্ত স্মরণ পদযাত্রায় অংশ নেন সর্বস্তরের মানুষ। পদযাত্রা শেষে স্কুল প্রাঙ্গণে সুচিত্রা সেন স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়।

একে জামান/আরএআর/পিআর