‘বাংলাদেশের সমতুল্য হলেই পাকিস্তানের মানুষ খুশি’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৯:০১ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের সময় তৎকালীন অর্থমন্ত্রী ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম সাইফুর রহমান সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের চার লেনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলেন। আগামী মাস দুয়েকের মধ্যে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণের টেন্ডার হবে। এ কাজের জন্য প্রয়োজনীয় টাকাও অর্থায়ন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সিলেট সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকেদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথার বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান চার লেনের কাজ বন্ধ করে দিলেন। আমি আমার ভাইকে (অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত) জিজ্ঞেস করলাম চার লেনের কাজ বন্ধ কেন? তখন আমার ভাই বললেন, এটা নিয়ে তো কেউ কথা বলে না। পরে আমি চারলেন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি আমাকে এডিবির সঙ্গে কথা বলার জন্য বলেন। এরপর ধীরে ধীরে কাজ এগুতে থাকে। এর আগে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত কয়েকবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কাজ শুরু করার উদ্যোগ নিলেও কাজ শুরু হয়নি।

আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে রয়েছে। সিলেটেও ব্যাপক উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সিলেটের উন্নয়নে ব্যাপকভাবে বরাদ্দ দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এখন পাকিস্তানের মানুষ তাদের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে বলে- আগামী ১৯ বছরে সুইজারল্যান্ড না বানিয়ে বাংলাদেশ বানিয়ে দেখান। অন্তত বাংলাদেশের সমতুল্য হলেই পাকিস্তানের মানুষ খুশি। চিন্তা করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কতো আগে চিন্তা করেছিলেন। বাংলার মানুষের মুক্তির জন্য তিনি বহু আগেই সংগ্রাম করেছিলেন। সেই সুফল আমরা ভোগ করছি।

তিনি আরও বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সকল ভাষণ সংগ্রহ করেছি। আগামী মার্চে বঙ্গবন্ধুর ১২৭টি ভাষণ আমি প্রকাশ করব বলে আশা প্রকাশ করেছি।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিভিন্ন মিশন নতুন করে সাজানো হয়েছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আমরা চেষ্টা করছি বিদেশে যত বেশি রোড এবং এভিনিউ বঙ্গবন্ধুর নামে করা যায়। কিছু সাড়াও পাওয়া যাচ্ছে। এবং ইউনেস্কোও আমার সঙ্গে একমত হয়েছে। তারাও আমাদের সঙ্গে মিলে মুজিববর্ষ উদযাপন করবে।

এ সময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ছামির মাহমুদ/আরএআর/পিআর