কথায় কথায় বাবার মাথায় পিস্তল ঠেকান আ.লীগ নেতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২০
অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা খ ম হাসান কবীর

পাবনায় আওয়ামী লীগ নেতা খ ম হাসান কবীর আরিফের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ তুলে ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তার বাবা খন্দকার আবদুল মান্নান। জিডিতে ছেলের লাইসেন্স করা পিস্তল জব্দেরও আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

গত ১৩ জানুয়ারি খন্দকার আবদুল মান্নান থানায় হাজির হয়ে এ জিডি করেন। ওই দিনই জিডিটি গ্রহণ করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকেলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, অভিযুক্ত খ ম হাসান কবীর আরিফ পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি। তার বাবা খন্দকার আবদুল মান্নান জেলার সুপরিচিত পরিবহন ব্যবসায়ী ও আরিফ পরিবহনের মালিক। তাদের বাড়ি জেলা শহরের গোপালপুর মহল্লায়।

জিডিতে খন্দকার আবদুল মান্নান উল্লেখ করেছেন, আমার বড় ছেলে খ ম হাসান কবীর আরিফ এর আগে আমাকে খুন করার জন্য গলা টিপে ধরেছে। এ ছেলে কথায় কথায় আমার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে খুন করতে চায়। এতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি আমি। তার জন্য স্বাধীনভাবে চলাফেরা বন্ধ হয়ে গেছে আমার। এর আগে আমার গণপরিবহন ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি করেছে আরিফ। এখন অসহায় হয়ে পড়েছি আমি। এ কারণে জীবনের নিরাপত্তার স্বার্থে এই ছেলের লাইসেন্স করা পিস্তলটি জব্দের অনুরোধ জানাই।

জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করে পাবনা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহমেদ বলেন, খ ম হাসান কবীর আরিফের বাবা নিজে থানায় এসে জিডি করেছেন। বাবা-ছেলে দুজনই শহরের সম্মানিত ব্যক্তি। তাই বিষয়টি তদন্তের জন্য আদালতের অনুমতি চায়া হয়েছে। আদালতের নির্দেশনা অনুসারে অস্ত্র জব্দসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে খ ম হাসান কবীর আরিফ তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে বলেছেন, আমার বাবার বয়স ৯০ বছর। তার পক্ষে থানায় গিয়ে এ ধরনের জিডি করা সম্ভব নয়। কেউ হয়তো তাকে বিভ্রান্ত করে স্বাক্ষর করিয়ে কাজটি করতে পারেন। আমি এক মাস ধরে ঢাকায় আছি। তাই বিষয়টি ষড়যন্ত্রমূলক মনে হচ্ছে।

একে জামান/এএম/পিআর