মুক্তিপণ দিয়েও মুক্তি মেলেনি অপহৃত ২ জেলের

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০৪:৫৪ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জে বনদস্যুদের মুক্তিপণের দুই লাখ টাকা পরিশোধের তিনদিন কেটে গেলেও মুক্তি মেলেনি অপহৃত দুই জেলের।

অপহৃত জেলেরা হলেন শ্যামনগরের মথুরাপুর গ্রামের মাহদেব সরদারের ছেলে বাটুল সরদার ও হরিনগর গ্রামের লোকমান গাজীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক। সন্তানের অপারেশনের কথা জানিয়ে বনদস্যুদের কবল থেকে মুক্তি পেয়ে লোকালয়ে ফিরেছেন অপহৃত আরেক জেলে রজব আলী।

ফিরে আসা রজব আলী বলেন, বনদস্যু জোনাব বাহিনীর সদস্যরা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার তৎপরতার মুখে কিছুদিন ভারতে অবস্থানের পর আবারও ফিরে এসে সুন্দরবনে দস্যুতা শুরু করেছে। গত বুধবার রাতে পশ্চিম সুন্দরবনের বৈকেরী খাল থেকে মাছ শিকারের সময় আট নৌকা থেকে তিনজন জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বনদস্যু জোনাব বাহিনী।

রজব আলীর ছেলে আবু বক্কার ও স্থানীয় নুর ইসলাম জানান, গত বুধবার সকালে নির্দিষ্ট বিকাশ নম্বরে অপহরণের শিকার দুই জেলের মুক্তিপণের টাকা পরিশোধ করা হয়। তিনদিন পার হলেও বাড়িতে না ফেরায় চরম উদ্বেগের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন তাদের পরিবারের সদস্যরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য উৎপল জোয়াদ্দার বলেন, দস্যুদের দাবিকৃত টাকা বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করা হলেও দুই জেলেকে মুক্তি দেয়নি দস্যুরা। শনিবার হরিনগর বাজার এলাকাসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় টহল দিচ্ছে র‌্যাব।

মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল বলেন, অপহরণের বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে শুনেছি। তবে এ বিষয়ে আমি বিস্তারিত জানি না।

সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) এমএ মান্নান বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে অভিযোগ করেনি কেউ।

শ্যামনগর থানা পুলিশের ওসি নাজমুল হুদা বলেন, মুক্তিপণের দাবিতে দুই জেলেকে অপহরণ করা হয়েছে এমন ঘটনা নিয়ে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি।

আকরামুল ইসলাম/এএম/এমকেএইচ