আমরা দেশের মানুষকে উন্নত জীবন দিতে চাই : পলক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নাটোর
প্রকাশিত: ০৭:৫৪ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ভাষা আন্দোলন, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামসহ প্রতিটি গণআন্দোলনে বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশের অস্তিত্বের প্রশ্ন ছিল। রক্তস্নাত আত্মত্যাগের পথ পাড়ি দিয়ে অর্জিত হয়েছে মাতৃভাষা ও স্বাধীনতা। শহীদদের ঋণ শোধ করতে হবে। আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ বা ভাষা আন্দোলন সংঘটিত না হলেও দেশকে ভালোবাসার মধ্য দিয়ে এই নতুন প্রজন্মকে শহীদদের ঋণ শোধ করতে হবে।

শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে নাটোরের সিংড়া কোর্ট মাঠে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন সরকারি দফতরের প্রধানদের শপথবাক্য পাঠ করানো শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ১৯৭৫ এর ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাসকে আড়াল করে রাখা হয়। স্বাধীনতাবিরোধী মৌলবাদী অপশক্তি দেশের রাজনীতিতে অভিষিক্ত হয়। গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তারা মুক্তিযুদ্ধসহ বাঙালির গণআন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাসকে আড়াল করে কয়েক প্রজন্মকে বিভ্রান্ত করে। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে বিকৃত ইতিহাসের কলঙ্কমোচন করে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরে।

তিনি আরও বলেন, আমরা অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়েছি। অনেক অপশক্তির চোখ রাঙানি সহ্য করেই এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা দেশের মানুষকে উন্নত জীবন দিতে চাই। আমরা চাই প্রতিটি মানুষ তার ন্যূনতম মৌলিক অধিকার থেকে যেন বঞ্চিত না হয়। এ লক্ষে আমরা কাজ করছি।

প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে পলক বলেন, মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা দেশবাসীকে আরও বেশি সেবা দিতে চাই। এজন্য প্রতিটি সরকারি দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরলসভাবে সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। কাজকে নিজের কর্তব্য মনে করতে হবে। দেশের প্রতিটি মানুষকে কাঙ্ক্ষিত সেবা দেয়ার মাধ্যমে মুজিববর্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা জানানো হবে।

অনুষ্ঠান সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন আক্তার বানুর নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসনের ১৭টি দফতরের প্রধানগণকে শপথ পাঠ করান প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এ সময় সিংড়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ জান্নাতুল ফেরদৌস, সিংড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুর এ আলম সিদ্দীকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রেজাউল করিম রেজা/আরএআর/পিআর