রাতে কমলেও সকাল থেকে আবারও বাড়ছে সুরমার পানি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সুনামগঞ্জ
প্রকাশিত: ০১:৪১ পিএম, ১২ জুলাই ২০২০

ভারতে পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিপাতের ফলে সুরমা নদীর পানি কিছুটা কমলেও এখনও বিপৎসীমার ৪১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া উজানের ঢলের পানিতে প্লাবিত হয়েছে নদী তীরবর্তী বাড়িঘর ও দোকানপাট।

রোববার (১২ জুলাই) দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরের ষোলঘর পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ৪১ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা শনিবার (১০ জুলাই) সকালে ছিল ৫৪ সেন্টিমিটার। রাতে পানি কমে গেলেও রোববার সকাল থেকে আবারও বাড়তে থাকে।

Sunamganj-2

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, ভারতের মেঘালয় ও চেরাপঞ্জিতে পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিপাতের ফলে সুনামগঞ্জের বিভিন্ন নদ-নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। রোববার দুপুর ১২টা পর্যন্ত সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ৪১ সেন্টিমিটার ও যাদুকাটা নদীর পানি বিপৎসীমার মাত্র ২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সুনামগঞ্জে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৯২ মিলিমিটার। সুনামগঞ্জে বৃষ্টিপাত কম হলেও ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টিপাত থাকায় পাহাড়ি ঢলের পানি নদীতে চলে আসায় বিভিন্ন নদ নদীর পানি বিপৎসীমা পেরিয়ে শহরে ও হাওরাঞ্চলে প্রবেশ করেছে। এতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে বলে জানায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

অন্যদিকে সিলেট আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, রোববার সকালে সুনামগঞ্জে ভারী বৃষ্টিপাত হলেও সোমবার থেকে বৃষ্টিপাত কমে যাবে। তখন ভারতের চেরাপুঞ্জিতেও বৃষ্টিপাত কমে যাবে এবং সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

Sunamganj

সিলেট আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, সুনামগঞ্জে আজ রোববার পর্যন্ত ভারী বৃষ্টিপাত হবে এবং উজানের পানির ঢল অব্যাহত থাকবে। তবে আগামীকাল থেকে সুনামগঞ্জে বৃষ্টিপাত কমে যাবে, তাই আশা করা যায় কাল থেকে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সহিবুর রহমান জানান, বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও কমেছে।

মোসাইদ রাহাত/এফএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]