দিনাজপুরে পালিত হলো জলবায়ু ধর্মঘট

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

জলবায়ু সচেতনতায় কাজ করতে এবং বাসযোগ্য পৃথিবী গড়তে সারাবিশ্বের সঙ্গে একযোগে দিনাজপুরেও পালিত হলো ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠান জলবায়ু ধর্মঘট।

শুক্রবার সকালে বিএসবি দিনাজপুর শাখার আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সন্মুখ সড়কে ঘণ্টাব্যাপী ধর্মঘটের ব্যানার হাতে দাঁড়িয়েছিল সংগঠনের সেচ্ছাসেবক শিক্ষর্থীরা।

তাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন নাগরিক উদ্দ্যোগ দিনাজপুরের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুস সবুর, শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা রেজাউল করিম। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিএসবি দিনাজপুর ডিস্ট্রিক ক্যাপ্টেন মো. হাবিবুল হাসান।

পরে তারা দিনাজপুর বড় ময়দানে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পার্শ্বে বৃক্ষরোপন কার্যাক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে। পরবর্তীতে জেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পর্যায়ক্রমে বৃক্ষরোপন করা হবে ।

বিএসবি দিনাজপুর ডিস্ট্রিক ক্যাপ্টেন মো. হাবিবুল হাসান এ আন্দোলনের বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করে জানান, সারাবিশ্বের জলবায়ু কর্মীদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর)। প্রায় ১৭০টিরও বেশি দেশে এবং বাংলাদেশের ৬৪ জেলায় একইদিনে গ্রেটার থুনবার্গের আহ্বানে ফ্রাইডেস ফর ফিউচার প্লাটফর্ম থেকে একযোগে পালিত হলো 'জলবায়ু ধর্মঘট' ও জলবায়ু পরিবর্তন রোধে বিভিন্ন কর্মসূচি।

তৃতীয় বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম একটি দেশ। আমাদের দেশের তরুণরা এ বিষয়ে আগের চেয়ে অনেক বেশি সচেতন, কিন্তু বিশ্ব নেতারা ও নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে যারা আছেন তারা কতটুকু ভাবছেন এ মারাত্মক জলবায়ু ঝুঁকি নিয়ে? আর এ বিষয়ে সমাধানই বা কী?

এসব বিষয় মাথায় রেখে আয়োজন করতে যাচ্ছে একযোগে বাংলাদেশের ৬৪ জেলায় জলবায়ু ধর্মঘট ও বৃক্ষরোপণ অভিযান। এর সাথে থাকছে বিশ্বের সাতটি মহাদেশের প্রতিনিধিদের সম্মেলন। যেখানে চমক হিসেবে থাকছে আরও কিছু। আর যারা জলবায়ু ধর্মঘট ও বৃক্ষরোপণ অভিযানে নিজের জেলাকে নেতৃত্ব দিতে চান প্রত্যক্ষভাবে অংশ নিতে চান, তারা সকলেই আমাদের মতো করে কাগজে ক্লাইমেট বিষয়ক স্লোগান লিখে নিজের ফেইসবুক আইডিতে পোস্ট করতে পারেন।

আপনার এ সামান্য অবদানই পারে পৃথিবীকে বসবাসের উপযুক্ত করে তুলতে। তাই আমিও দিনাজপুরকে রিপ্রেজেন্ট করছি আমার জায়গা থেকে। আশা করি আপনারাও আমাদের পাশে থাকবেন।

এমদাদুল হক মিলন/এমএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]