কাপ্তাই হ্রদে নৌকাবাইচে সম্প্রীতির মেলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাঙ্গামাটি
প্রকাশিত: ০৭:২৫ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২০

কাপ্তাই হ্রদের স্বচ্ছ নীল জলরাশিতে পাহাড়ি-বাঙালি নারী-পুরুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা।

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জন্মদিনকে স্মরণীয় রাখতে প্রতি বছরের মতো এ বছরও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় শহীদ মিনার ঘাট এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ। রোববার দুপুরে কাপ্তাই হ্রদে জলরাশিতে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

Rangamati-Boat-Race1

রেফারির বাঁশির শব্দে শুরু হওয়া বাইচের ছলাৎ ছলাৎ শব্দ ও দক্ষ বৈঠায় একে অন্যকে ছাড়িয়ে যাওয়ার প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয় প্রতিযোগীরা।

নৌকা, কায়াকিং ও সাম্পান এই তিন ইভেন্টে ৩০ টির অধিক নৌকায় পাহাড়ি-বাঙালির নারী-পুরুষের অংশগ্রহণে ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচে মাতোয়ারা হন এলাকাবাসীও।

Rangamati-Boat-Race1

আয়োজিত নৌকাবাইচ দেখতে শত শত নারী-পুরুষের ঢল নামে। কেউ নৌকা, কেউবা বোটে আবার কেউবা লঞ্চে করে কাপ্তাই হ্রদে নৌকাবাইচ উপভোগ করতে আসেন। বিশেষ করে নৌকাবাইচে নারীদের অংশগ্রহণ প্রতিযোগিতায় ভিন্ন মাত্রা যোগ করে।

সাম্পানে জ্বলন্ত ত্রিপুরা, নারীদের ১৫ জনের নৌকায় আলো ত্রিপুরা, পুরুষদের ২১ জনের নৌকায় যুবরাজ ত্রিপুরা ও কায়াকিংয়ে তাপসী চাকমা প্রথম হয়েছেন।

Rangamati-Boat-Race1

নৌকাবাইচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা ও রাঙ্গামাটি রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার মো. ইফতেকুর রহমান প্রমুখ।

এএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]