পঞ্চগড়ে চা নিলাম বাজার স্থাপনের আশ্বাস

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পঞ্চগড়
প্রকাশিত: ০৬:১৭ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২০

 

চট্টগ্রাম ও সিলেটের পর এবার পঞ্চগড়ে দেশের তৃতীয় চা নিলাম বাজার স্থাপনের আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল জহিরুল ইসলাম। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে চা চাষি ও কারখানা মালিকসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ আশ্বাস দেন।

পঞ্চগড় চা বোর্ড আয়োজিত মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, পঞ্চগড় চা বোর্ডে ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ শামীম আল মামুনসহ চা চাষি ও কারখানা মালিকরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, পঞ্চগড়ে চায়ের নিলাম বাজার হলে এখানে অত্যাধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। ঘরে বসেই বিক্রেতারা শেয়ার বাজারের মতো বাজার দরসহ নানা বিষয় জানতে পারবেন। এছাড়াও শ্রমিকের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনার জন্য আত্যাধুনিক প্লাকিং মেশিন স্বল্পমূল্যে চাষিদের মাঝে সরবরাহ করা হবে। এতে পাতার মানও ভালো পাওয়া যাবে।

jagonews24

সমতলের চা উৎপাদনে মডেল পঞ্চগড়। তাই পঞ্চগড়ের চা শিল্পকে আরও এগিয়ে নিতে চা বোর্ড কাজ করে যাচ্ছে। তবে উৎপাদিত চায়ের মান ভালো করার বিষয়ে এখন নজর দিতে হবে। ভালোমানের চা পেতে হলে চা বোর্ডের উদ্ভাবিত বিটি-২ ভেরাইটির চা রোপণ করতে হবে। প্লাকিংয়ের সময় দুটো পাতা একটি কুড়ির বেশি পাতা উত্তোলন করা যাবে না। চাষিদের দক্ষতা উন্নয়নের জন্য আরও বেশি বেশি প্রশিক্ষণ দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হবে।

শ্রমিকদের স্বাস্থ্যের দিকেও নজর রাখতে হবে। তারা ভালো থাকলে ভালো সেবা দেবেন। অনেক কারখানা মালিক অবৈধভাবে খোলা বাজারে চা বিক্রি করছেন। এতে তারা যেমন নিজেদের ক্ষতি করছেন, তেমনি রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছেন। করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্ত চা চাষি ও কারখানা মালিকদের প্রণোদনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করে ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে পরবর্তীতে বিস্তারিত জানানো হবে।

পরে চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল জহিরুল ইসলাম কয়েকটি চা বাগান পরিদর্শন করেন এবং পঞ্চগড় আঞ্চলিক চা বোর্ডে ‘বঙ্গবন্ধু চা গ্যালারি’ উদ্বোধন করেন।

সফিকুল আলম/আরএআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]