রায়ের পর আদালতের নথি চুরি, ফেনীতে একজনের ৫ বছরের জেল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৮:৪৭ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০২০
ফাইল ছবি

আদালতের নথিপত্র চুরির দায়ে ফেনীতে নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিন নামের এক ব্যক্তিকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেনের আদালতে এ রায় দেয়া হয়।

মামলার বাদী ফেনী জজ আদালতের নাজির মো. শামছুল কিবরিয়া বলেন, ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল সকালে ফেনী জেলা জজ আদালতের ৩০৮ নম্বর কক্ষের এজলাস থেকে সি.আর-২৪৬/১২ ও ফৌজদারি আপিল মামলা নম্বর-৯৮/১৫-এর নথি চুরি করে নিয়ে যান নুরুল হক।

বিষয়টি জানাজানি হলে কর্মকর্তাদের নির্দেশে আমি বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা করি। ১১ এপ্রিল এসআই মো. দুলাল মিয়া আসামির বসতঘর থেকে চুরি হওয়া নথিপত্র উদ্ধার করে আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করেন। পরে আদালত এ মামলায় আসামির ভাই ও তার গ্রামের মেম্বারসহ মোট নয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রায় ঘোষণা করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সৈয়দ আবুল হোসেন বলেন, নথি চুরির বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় নুরুল হককে পেনাল কোডের দুটি পৃথক ধারায় দুই বছর ও তিন বছরসহ মোট পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত নুরুল হক কুমিল্লার নাঙ্গলকোট থানার রায়কোট গ্রামের মৃত আতাউর রহমানের ছেলে। রায় ঘোষণাকালে পলাতক ছিলেন তিনি।

মামলার বাদী শামছুর কিবরিয়া জানান, আদালত থেকে চুরি হওয়া নথিতে নুরুল হক ও তার স্ত্রীর দণ্ড ঘোষিত ছিল। পরে ওই মামলায় আপিল করেও তাদের দণ্ড কমানো যায়নি।

রাশেদুল হাসান/এএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]