পরীক্ষার দাবিতে হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ০৮:০২ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০২০

স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতক শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

রোববার (২৯ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করেন পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনরত বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

মহাসড়ক অবরোধের কারণে সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শত শত বাস ও ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন সড়কে আটকা পড়ে।

এদিকে, পরীক্ষা গ্রহণ করা না করার বিষয়ে হাবিপ্রবির রেজিস্ট্রার মো. ফজলুল হক সবার অবগতির জন্য একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন।

জানা যায়, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতক শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে আসছেন। মানববন্ধনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার দাবিতে ৪ নভেম্বর প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে উপাচার্যের বাসভবনে সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

৮ নভেম্বর আবারও প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। সেসময় সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ভেতরে আটকা পড়েন।

Dinajpur-HSTU-1

সন্ধ্যা ৬টার দিকে দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাগফারুল হাসান আব্বাসী আন্দোলনরত শিক্ষার্থী এবং উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করেন। পরে শিক্ষার্থীদের জানানো হয় ১৪ নভেম্বর জানানো হবে পরীক্ষা কবে কিভাবে নেয়া যায়।

অথচ পরে শিক্ষার্থীদের কিছুই জানানো হয়নি। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা সেশনজট এড়াতে চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে আবারও আন্দোলনে নামে। রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ শুরু করে শিক্ষার্থীরা। ফলে মহাসড়কের দুই পাশে শত শত পরিবহন আটকা পড়ে।

১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা জানান, ক্যাম্পাসের ভেতরে আন্দোলন করতে করতে তাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। তাই বাধ্য হয়ে ক্যাম্পাসের ভেতর থেকে মহাসড়কে উঠে এসেছেন তারা। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু উপাচার্য সব জেনেও কোনো সিদ্ধান্ত দিচ্ছেন না।

এ অবস্থায় পরীক্ষা গ্রহণ না করার বিষয়ে হাবিপ্রবির রেজিস্ট্রার মো. ফজলুল হক সবার অবগতির জন্য একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন।

যাতে বলা হয়েছে, আগামী ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। ইউসিজি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পাওয়া সাপেক্ষে কাল বিলম্ব না করে সশরীরে বা অনলাইনে গ্রহণ করা হবে। আগামী ১ ডিসেম্বর ইউজিসির চেয়ারম্যান বরাবর রেজিস্ট্রার একটি চিঠি পাঠাবেন। যাতে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরা হবে।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মোজাফফর হোসেন বলেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাগফারুল হাসান আব্বাসী, এসিল্যান্ড এবং আমি ঘটনাস্থলে গেছি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। পরীক্ষার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে।

এমদাদুল হক মিলন/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]